সংবাদ শিরোনাম

 

হালুয়াঘাট সংবাদদাতা : ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে নিজ মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ এক লম্পট পিতার বিরুদ্ধে। রবিবার (২৭ জুন) সকালে হালুয়াঘাট থানা পুলিশ মোস্তফা (৪০) নামে ধর্ষক পিতাকে আটক করেছে। আটতকৃত মোস্তফা আমতৈল ইউনিয়নের চকেরকান্দা গ্রামের মৃত চানু মিয়ার ছেলে।

অভিযুক্ত মোস্তফার চাচা মিজান মিয়া জানান-নেশাগ্রস্ত মোস্তফার স্ত্রী প্রায় ৮ বছর আগে সংসার ছেড়ে চলে যায়। মোস্তফার সংসারে ২ পুত্র ও এক যুবতী ১ কন্যা সন্তান রয়েছে। মোস্তফা বিশ কিছুদিন যাবত তার মেয়ের উপর শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো।

গত মঙ্গলবার দুপুরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে মোস্তফা তার মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং এই ঘটনা কাইকে না জানতে মেয়েকে মারধর করে। পরে রবিবার মোস্তফার মেয়ে ধর্ষনের বিষয়টি তার দাদীকে জানায়। পরে পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী অভিযুক্ত মোস্তফাকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

ভুক্তভোগী ১৫ বছর বয়সী মোস্তফার মেয়ে বলেন, গত মঙ্গলবার দুপুরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে আমার বাবা আমাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনা যেন কাউকে না বলি সে জন্য সে আমাকে শারীরিক নির্যাতন করে। বিষয়টি পরে আমি আমার দাদীকে জানাই। আমার উপর যে অন্যায় করা হয়েছে আমি এর কঠিন বিচার চাই। যেন আরো কোন বাবা তার মেয়ের সাথে এমন কাজ করতে না পারে।

আমতৈল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান বলেন, রবিবার সকালে ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে অভিযুক্ত মোস্তফাকে পুলিশে সোপর্দ করি।

হালুয়াঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত মেডিকেল অফিসার ইসরাত জাহান বলেন, রবিবার দুপুরে মেয়েটিকে নিয়ে পুলিশ হাসপাতালে আসে। মেয়েটির পায়ে ও হাতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষা শেষে ডিএনএ টেষ্ট এর জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর জন্য বলেছি।

হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহমুদুল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রবিবার সকালে খবর পেয়ে অভিযুক্ত আসামী মোস্তফাকে আটক করি। এ বিষয়ে হালুয়াঘাট থানায় ধর্ষণ মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম