সংবাদ শিরোনাম

 

ময়মনসিংহের সদর উপজেলার চর ভবানীপুরের গ্রামের বাড়িতে মাতৃত্বকালীন ছুটিতে এসে প্রতিপক্ষের রামদার কুপে পুলিশ সদস্য সুমাইয়া খাতুন গুরুতর আহত হয়েছে। ১৮ সেপ্টেম্বর বিকেলে এই ঘটনা ঘটে। সুমাইয়া খাতুন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের কন্ট্রোল রুমে কর্মরত রয়েছেন। নারী পুলিশ সদস্যকে আহত করার অভিযোগে ৪ জনকে আটক করেছে কোতোয়ালী পুলিশ। আটককৃতরা হলেন আজিুল হক (৫২), সারোয়ার(২৭), আবুল কালাম (৩৫) ও মঞ্জু(২৯)।

কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি শাহ কামাল আকন্দ বলেন, নারী পুলিশ সদস্য সুমাইয়া ছুটিতে এসে হামলার শিকার হয়েছে। তাঁর অবস্থাও গুরুতর। সে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এবিষয়ে সুমাইয়া আপন ভাই আলী আকবর বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। বিভিন্ন জায়গা রাতভর অভিযান পরিচালনা করে এজাহার ভুক্ত আসামী ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। বাকীদের গ্রেফতারে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানান।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানায়, ময়মনসিংহ সদর উপজেলার সিরতা ইউনিয়নের চর ভবানীপুরে ২৩ বছর ধরে জমিজমা নিয়ে আলী আকবর এবং আজিজুল হক এই দুই পরিবারের মধ্যে দ্বন্ধ চলছিল। ১৮ সেপ্টেম্বর বিকেলে এনিয়ে বাগবিতন্ডার এক পর্যায়ে আজিজুল হকরা দেশিয় অস্ত্র নিয়ে আলী আকবরের পরিবারের উপর হামলা করে। এসময় আলী আকবরের বোন সুমাইয়া খাতুন তাঁর শিশু বাচ্চাকে নিয়ে বারান্দায় বসে থাকলে তাঁর মাথায়ও রামদা দিয়ে কুপ দেয় মারাত্মক যখম করে। এতে সাথে সাথে অজ্ঞান হয়ে পড়েন সুমাইয়া। তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১০ নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় সুমাইয়ার বোনও আহত হয়।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম