সংবাদ শিরোনাম

 

আইপিএলে নিজেদের নবম ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে শেষ বলে হেরেছে কলকাতা নাইট রাইডার্সের। তাতে শেষ চারের পথটা আরো একটু কঠিন হয়ে পড়ল দলটির জন্য।

রবিবার কলকাতার ছুঁড়ে দেওয়া ১৭২ রানের লক্ষ্যে শুরু থেকেই দারুণ জবাব দিচ্ছিল চেন্নাই। ৬৯ বলেই তুলে ফেলেছিল ১০২ রান। এরপরই এক ঝড়ে পথহারা হওয়ার যোগাড় চেন্নাইয়ের। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ১৪২ রানে হারিয়ে ফেলে ছয় ব্যাটারকে।

চেন্নাইয়ের জয়টাকে মনে হচ্ছিল দূর আকাশের তারা। এরপরই জাদেজার জাদুর শুরু। ১৯তম ওভারে প্রসিধ কৃষ্ণর ৬ বলে তুলে নিলেন ২২ রান। শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ৪ রানের।

নাটকের যে তখনো ঢের বাকি! শেষ ওভার করতে আসা সুনীল নারাইন প্রথম বলেই তুলে নেন স্যাম কারানকে। এরপরের বলে রান এল না, সমীকরণটা দাঁড়াল ৪ বলে ৪ রানের। তৃতীয় বলে এল তিন রান। লক্ষ্যটা কমে এল তিন বলে এক রানে। এরপর ডট, পরের বলে এলবিডব্লিউর শিকার জাদেজা। শেষ বলে তখন চাই আরো একটা রান, নাহয় ম্যাচটা চলে যেত সুপার ওভারে।

তবে এরপর আর কোনো নাটক নয়, নতুন ব্যাটার দীপক চাহার নারাইনের লেন্থ বলটাকে ডিপ মিড উইকেটে উড়িয়ে মেরেই জিতিয়ে দেন চেন্নাইকে।

এর আগে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে কলকাতা শুরুটা ভালোই পেয়েছিল। দ্রুত শুভমান গিলকে হারালেও ভেঙ্কেটেশ আইয়ের ও রাহুল ত্রিপাঠীর কল্যাণে দারুণ একটা ভিতও পেয়ে যায় দলটি। তার ওপরই আন্দ্রে রাসেল ও দীনেশ কার্তিকের ছোট অথচ কার্যকরি ক্যামিওতে বড় পুঁজি পায় কলকাতা। যদিও চেন্নাইয়ের দারুণ ব্যাটিংয়ে জয়টা রয়ে গেছে অধরা।

এই হারের ফলে পয়েন্ট তালিকার চারে থাকলেও প্লে অফের আশাটা একটু ধাক্কাই খেয়েছে দলটির। পাঞ্জাব কিংসের সঙ্গে তাদের পার্থক্যটা এখন নেট রান রেটের। ওদিকে ছয় আর সাতে থাকা পাঞ্জাব আর মুম্বাই কলকাতা থেকে ম্যাচ খেলেছে একটি কম, ফলে নিজেদের ম্যাচে দলদুটো জয় তুলে নিলেই এখন টপকে যাবে কলকাতাকে।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম