সংবাদ শিরোনাম

 

কোনোভাবেই কমছে না শীতের সবজির দাম। গত চার দিন ধরে বাজারে সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। শীত লক্ষ্য করে আগাম সবজির দামে অতিষ্ঠ ক্রেতারা। রোববার (১০ অক্টোবর) রাজধানীর মিরপুর-৬ এবং মিরপুর-১ নম্বর কাঁচাবাজারে সরেজমিনে ঘুরে ও ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বাজারে গেল কয়েকদিনে অর্থাৎ মৌসুম শুরুর আগেই শীতকালীন সবজির দাম ঊর্ধ্বমুখী দেখা গেছে। এদিকে যত দিন যাচ্ছে বাজারে ততই শীতকালীন সবজির সরবরাহ বাড়ছে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। তবে সরবরাহ বাড়লেও সেভাবে কোনো সবজিরই দাম না কমায় বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা। পুরোদমে শীত পড়া শুরু হলে ঊর্ধ্বমুখী সব সবজির দামই নাগালের মধ্যে চলে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন বিক্রেতারা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, আকার ভেদে লাউ বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৮০ টাকায়, ঝিঙ্গার কেজি ৬০ থেকে ৮০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা কেজি, বরবটি ৮০ টাকা কেজি, পটল ৫০ থেকে ৮০ টাকা কেজি, চালকুমড়া ৫০ টাকা পিস, ঢেঁড়স ৬০ টাকা কেজি, ধুন্দল ৫০ টাকা কেজি, আকার ও জাত ভেদে বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৮০ টাকা দরে। ক্যাপসিকাম ২৪০ টাকা কেজি, শিম ১০০ থেকে ১৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। টমেটো ১৪০ টাকা থেকে ১৬০ টাকা কেজি, ফুলকপি প্রতি পিস ৫০ টাকা, বাঁধাকপি ৫০ টাকা পিস এবং লতি ৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে কাঁচামরিচ ১৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। কাঁচামরিচের দাম বৃদ্ধির বিষয়ে সবজি বিক্রেতা শাহবুদ্দিন জানান, দেশি কাঁচামরিচ পাওয়া যায় না। ভারত থেকে আমদানি করা কাঁচামরিচ বাজারে বিক্রি হচ্ছে। এজন্য কাঁচামরিচের দাম বাড়ছে। মরিচে আমদানি নির্ভরতা কমে গেলে বা দেশি মরিচ উঠা শুরু হলে দাম কমে যাবে। গত সপ্তাহের তুলনায় টমেটো ও কাঁচামরিচের দাম বেড়েছে। শীতের সবজি কেবল নামা শুরু হয়েছে এজন্য দাম বাড়তি। অন্যদিকে গরম বিদায় নেওয়ায় গ্রীষ্মকালীন সবজির দাম কম বলে জানান এ ব্যবসায়ী।

সাব্বির নামের এক ক্রেতা বলেন, সবজির দাম বাড়তি। গত ৮ থেকে ১০ দিন দাম একই জায়গায় আছে। দাম কমছেও না আবার বাড়ছেও না। আমরা চাইলে যেকোনো সবজি কিনতে পারছি না। কারণ দাম নাগালের বাইরে। শুক্রবারও বাজারে বেগুন, টমেটো, লাউ, ফুলকপিসহ প্রায় সব সবজির দাম যেখানে ছিল আজও সেখানেই আছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম