সংবাদ শিরোনাম

 

ধর্মীয় উগ্রবাদ ছড়ানোর মাধ্যমে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার অপচেষ্টা চলছে বলে মন্ত্রব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। রবিবার (১৭ অক্টোবর) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন প্রাঙ্গণে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর আয়োজিত ‘বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস-২০২১ উদযাপন’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মেট্রোরেলসহ অনেক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে, যা বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের সুনাম সৃষ্টি করেছে। এসব উন্নয়ন তাদের সহ্য হয় না বলে নানা কৌশল অবলম্বন করছে। ধর্মীয় উগ্রবাদ সৃষ্টি করে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত এবং বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার অপচেষ্টা করছে।’

তিনি বলেন, ‘হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান, মন্ত্রী, আমলা, কৃষক-শ্রমিকসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ এ দেশেরই সন্তান। সবাই মিলে সৌহার্দ্য সম্প্রীতি নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণ করতে হবে।’

বাংলাদেশে সব ধর্মের মানুষ কোনও বাধাবিঘ্ন ছাড়াই নিজের ধর্ম পালন করছে উল্লেখ করে তাজুল ইসলাম বলেন, ‘অন্য ধর্মের প্রতি সম্মান ও মর্যাদা করার শিক্ষা ইসলামসহ সব ধর্মেই রয়েছে। কিন্তু একটি গোষ্ঠী ধর্মকে ব্যবহার করে দেশে অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে।’

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পরই দেশে উন্নয়ন শুরু হয়। কিন্তু পরে ক্ষমতায় না আসায় উন্নয়নের ধারা স্থবির হয়ে পড়ে। এরপর পুনরায় শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে দেশকে নতুন এক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। এখন লক্ষ্যমাত্রা একটাই ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা বিনির্মাণ করা।’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে দরকার সঠিক নেতৃত্ব। আর সে নেতৃত্ব দেওয়ার সক্ষমতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আছে। যার নজির তিনি ইতোমধ্যে রেখেছেন এবং রেখে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বে আজ উন্নয়নের রোল মডেল। দেশের উন্নয়ন দেখে সারাবিশ্ব হতবাক।’

‘সুস্বাস্থ্যের জন্য হাত ধোয়া’ শুধু বাংলাদেশেই নয় সারা বিশ্বে গুরুত্বসহ অনুসরণ করা হয় উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘শহর-নগর, গ্রাম-গঞ্জের সব মানুষকে এ বিষয়ে সচেতন করার কাজ চলছে।’ নিয়মিত হাত ধোয়া, সম্ভাব্য সংক্রমিত ব্যক্তির সঙ্গে মেলামেশা না করা এবং বার বার সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড এবং ইউনিসেফের বাংলাদেশ প্রতিনিধি ভিরা মেন্ডোনকা। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম