সংবাদ শিরোনাম

 

রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন এমপি বলেছেন, দেশের রেল ব্যবস্থায় এককেন্দ্রিক পরিবর্তন করা হচ্ছে। মিটারগেজ রেললাইনকে ব্রডগেজে রূপান্তর করা হচ্ছে। আশপাশের দেশগুলো তাদের রেল ব্যবস্থাকে ব্রডগেজে রূপান্তর করেছে। আঞ্চলিক যোগাযোগের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে অভ্যন্তরীণ রেলপথকে একই রকম করে ব্রডগেজে রূপান্তরের জন্য পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়মনসিংহ রেলওয়ে জংশনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী পরিত্যক্ত ও অবহেলিত রেলকে দ্রুত সাজানোর জন্য বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। রেলকে আধুনিক, যুগোপযোগী করতে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। জয়দেবপুর থেকে জামালপুর হয়ে দেওয়ানগঞ্জ পর্যন্ত ব্রডগেজ লাইন হবে।

তিনি আরও বলেন, ময়মনসিংহ স্টেশনকে একটি আইকনিক স্টেশন হিসেবে গড়ে তোলা হবে। যেটি অত্যন্ত উন্নতমানের। প্রায় ২০০ কোটি টাকা খরচ করে ছয়-সাত তলা স্টেশন করা হবে। এছাড়াও ময়মনসিংহের সঙ্গে ঢাকা এবং সিলেটে ট্রেন চালুর বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী। এছাড়াও বেহাত হওয়া রেলওয়ের সম্পত্তি উদ্ধার করা হবে। অবৈধভাবে কেউ থাকতে পারবে না।

স্থানীয় জনতার দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রী আরও বলেন, অনতিবিলম্বে ময়মনসিংহ থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত একটি ডেডিকেটেড ট্রেন চালুর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

একইসঙ্গে চট্টগ্রাম-ময়মনসিংহ রুটে আরও একটি আন্তঃনগর বিজয় এক্সপ্রেস চালুর আশ্বাস দেন মন্ত্রী। ময়মনসিংহ অঞ্চলে অন্যান্য স্টেশনের আধুনিকায়ন, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশন চালুসহ অন্যান্য বন্ধ স্টেশন চালু করা হবে বলেও আশ্বাস দেন তিনি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সেলিম রেজা, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক, পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল প্রমুখ।

বাকৃবি স্টেশনে থামবে ট্রেন

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) স্টেশন থাকলেও সেখানে থামে না কোনো ট্রেন। তবে এবার সেই ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে কোনো ট্রেন থামে না। আমরা আগামীতে এখানে ট্রেন থামানোর ব্যবস্থা করব। একই সঙ্গে এখানে সুন্দর প্ল্যাটফর্মও করব। কারণ এটি গোটা বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়।

যাত্রীদের আরামদায়ক রেলভ্রমণ নিশ্চিতের লক্ষ্যে চলমান উন্নয়মূলক কাজ সরেজমিন দেখার জন্য ঢাকা, ময়মনসিংহ ও জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পর্যন্ত ৬টি স্টেশন ভ্রমণ করেন মন্ত্রী।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম