সংবাদ শিরোনাম

 

দক্ষিণ ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ এবং কর্ণাটকে টানা এক সপ্তাহের ভারি বৃষ্টিতে বন্যায় অন্তত ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন, ঘরছাড়া আরও কয়েক হাজার মানুষ।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাতে সিএনএন জানিয়েছে, আকস্মিক এ বন্যায় কেবল অন্ধ্র প্রদেশেই ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত সপ্তাহের শেষ থেকে টানা বৃষ্টিতে রাজ্যের সড়ক ও মহাড়কগুলো ডুবে যাওয়ায় কয়েকটি গ্রাম সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ওইসব গ্রামে জরুরি খাদ্য এবং পানি সরবরাহ পৌঁছানো কঠিন হয়ে পড়েছে।

কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারের ১৬টি দল বন্যার পানিতে আটকে পড়া মানুষগুলোকে উদ্ধারের চেষ্টা করছে। প্রায় ৫৮ হাজার মানুষকে তাদের ঘরবাড়ি থেকে ২৯৪টি আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতে নৌ এবং বিমান বাহিনী নিম্নাঞ্চল থেকে লোকজনকে উদ্ধার করছে। এছাড়া বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া গ্রামগুলোতে খাবার এবং পানি পৌঁছে দিচ্ছে।

পাশের কর্ণাটক রাজ্যে বন্যায় অন্তত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে বলে স্থানীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা তুষার গিরিনাথ সিএনএনকে জানিয়েছেন।

বৃষ্টিতে এ রাজ্যে দেড়শ ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘লোকজন মূলত তাদের আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে। আমরা তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করছি।’

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, আরব সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণাবর্ত এবং বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের কারণে এমন ভারি বৃষ্টি হচ্ছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে দক্ষিণাঞ্চলীয় তামিল নাড়ু উপকূলেও এর প্রভাব পড়তে পারে।

এ অঞ্চলে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বৃষ্টিপাত কমে আসার পূর্বাভাস থাকলেও সপ্তাহের শেষদিকে আবারও তা বেড়ে যাওয়ার আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম