সংবাদ শিরোনাম

 

যানজটে নাকাল নগরবাসীর কাছে রীতিমত গলার কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে ময়মনসিংহ নগরীর ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড। নগরীর ঠিক মাঝখানে আর.কে মিশন রোডে অবস্থিত এই বাসস্ট্যান্ডের কারণে প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত নগরবাসীকে যানজটের ভোগান্তি পোহাতে হয়। যানজট নিরসনে বাসস্ট্যান্ড অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন নেতারা।

 

ময়মনসিংহ নগরীর আর.কে মিশন রোড যা ত্রিশাল বাসন্ট্যান্ড হিসেবে পরিচিত। এই বাসস্ট্যান্ড থেকে শালবন সুপার নামে একটি সার্ভিসের প্রতিদিন ৫২ টি বাস ত্রিশাল হয়ে ভালুকা ও নান্দাইল উপজেলার কানুরামপুর পর্যন্ত যাওয়া আসা করে। আয়তনে ছোট এই বাসন্ট্যান্ডে সবসময় ৮ থেকে ১০টি বাস থাকে।

 

প্রতিদিন সকাল থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত পাঁচ মিনিট পরপর বাস যাওয়া আসা করে। প্রতিটি বাস কমপক্ষে ৬ থেকে ৭ বারের বেশি বিভিন্ন রুটে যাওয়া আসা করে। প্রতিদিন সাড়ে ৩০০ বার যাত্রীবাহী ৪০ সিটের বাসগুলো যাতায়াত করায় যানজট লেগেই থাকে শহরের ভেতরে।

 

নগরীর আরকে মিশন রোডে এলাকার বাসিন্দা সেলিম। তিনি প্রতিদিন সকাল ১০ টার মধ্যে তার ছেলেকে নিয়ে স্কুলে যান। তিনি বলেন, ‘একেতো শহর জুড়ে অটোরিকশা তারপর আবার বাসের চাপ রাস্তায় বের হলে অসহ্য লাগে।’

 

বদরের মোড় এলাকার ব্যবসায়ী বলেন, ‘এই ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ডের শালবন সুপার বাস সার্ভিসের কারণে আর.কে মিশন রোড ও মেডিক্যাল কলেজ গেইট পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার রাস্তায় যানজট লেগেই থাকে। একটার পর আরেকটা শালবন সুপার আসছে যাচ্ছে। যানজটের কারণে মনে হচ্ছে শহরটা বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। শহরে ভেতরে বাসস্ট্যান্ড থাকে তা ভাবতেও অবাক লাগে। কর্তৃপক্ষ এগুলো দেখেও দেখে না কি কারণে তা আমাদের জানা নেই।’

 

ময়মনসিংহ মহানগর সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সাধারণ সম্পাদক আলী ইউসুফ বলেন, ‘একটি মহল তাদের স্বার্থ হাসিলের জন্য শহরের বাসস্ট্যান্ড রাখতে মরিয়া। যার ফলে বড়বড় বাসগুলো রাস্তায় নামলেই তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। প্রশাসন কঠিন উদ্যোগ না নিলে ময়মনসিংহের অবস্থা আরও খারাপ হবে।’

 

ময়মনসিংহ জেলা মটর মালিক সমিতির মহাসচিব মাহাবুবুর রহমান বলেন, ‘শহর থেকে ৫২ টি শালবন পরিবহণ এবং কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০ টির মত বাস চলাচল করে। তবে এগুলো যানজটের প্রধান কারণ না। কারণ হচ্ছে অটোরিকশা। নগরীতে প্রায় ১০ হাজারের মতো অটোরিকশা রয়েছে। তাদের নিয়ন্ত্রণ না করা গেলে কোন দিনই যানজট কমবে না। আর এর জন্য কারা দায়ী তা সকলেই জানে।’

 

 

 

 

 

 

 

 

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান বলেন, ‘নগরীতে যানজট নিরসনে আমরা ফুটপাত দখলমুক্ত করছি। অনেক সড়কে ফুটপাত দখলমুক্ত হওয়ায় চলাচলে গতি বেড়েছে। ব্যাপক পরিসরে শহরকে যানজট মুক্ত করতে সমন্বিত প্রচেষ্টা চালানো হবে।’

 

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক বলেন, ‘যানজট ময়মনসিংহ শহরের অন্যতম সমস্যা। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বসে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আশা করা যাচ্ছে যানজট নিরসনের বিষয়ে আমরা একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারব।’

 

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র মো.ইকরামূল হক টিটু বলেন, ‘৩ বছর আগে মালিক সমিতির সঙ্গে বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছিল তারা বাসস্ট্যান্ড সরিয়ে মাসকান্দা টার্মিনালে যাবে। সেখানে তাদের জন্য জায়গাও করে দিয়েছিলাম। কিছুদিন তারা সেখানে বাস রাখলেও যাত্রী সংকটে শিক্ষার্থীদের দোহাই দিয়ে আবারও আর.কে মিশন রোড ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড ব্যবহার করছে। তাদেরকে বেশি কিছু বলতেও পারিছি না। এখন দেখা যাক এ বিষয়ে নতুন কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় কিনা।’


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম