সংবাদ শিরোনাম

 

শীতের সোনাঝরা রোদে মাঠজুড়ে যেন ঝিকিমিকি করছে হলুদ ফুলের সমারোহ। এ যেন এক অপরূপ সৌন্দর্য। দেখে মনে হয় হলুদ বরণে সেজেছে প্রকৃতি।

এমনি চিত্র দেখা যায় জামালপুরের বিভিন্ন এলাকায়। চারপাশে শুধু সরিষা ফুলের মৌ-মৌ গন্ধে মুখরিত ফসলের মাঠগুলো।

অন্যান্য ফসলের তুলনায় এ অঞ্চলে সরিষা চাষ বেশি হয়। অল্প সময়ে বেশি লাভ হওয়ায় সরিষা চাষে ঝুঁকেছেন কৃষকরা।

মেলান্দহ উপজেলার চরবানি পাকুরিয়া ইউনিয়নের কৃষক মোহাম্মদ আবুতাহা বলেন, ‘দেশীয় সরিষার জাতগুলোর চেয়ে হাইব্রিড জাতের সরিষার ফলন ভালো হয়। গত বছরর চেয়ে এবার ফলন ভালো হবে আশা করি। আমি ৫বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করেছি। আবহাওয়া ভালা থাকলে ফসল ঘরে তুলতে পারব।’

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, জামালপুরে এ বছর ২২ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু সরিষা চাষ হয়েছে ২৩ হাজার ৪০০ হেক্টর জিমিতে। গত বছরের তুলনায় এ বছর সরিষার চাষ বেশি হয়েছে। গত বছর জেলায় ২২ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ হয়েছিল।

জামালপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক নিতায় চন্দ্র বণিক বলেন, ‘এবার রেকর্ড পরিমাণ জমিতে সরিষার চাষ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার সরিষার বাম্পার ফলন হবে। এবার কৃষকরা বাড়তি মুনাফা পাবে বলে আশা করছি।’


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম