সংবাদ শিরোনাম

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইরাকে চলমান গৃহযুদ্ধে গত বছরে ৬ হাজার ৮৭৮ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দেশটির সরকার ইসলামিক স্টেট(আইএস) জঙ্গিদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। খবর আল জাজিরার।

মঙ্গলবার ইরাকে জাতিসংঘের সহায়তা মিশন(ইউএনএএমআই) জানায়, ইরাকে নিহতদের যে সংখ্যা উল্লেখ করা হয়েছে তা সর্বনিম্ন হিসেবে ধরা হয়েছে। সংঘাতপূর্ণ এলাকায় বেসামরিক নাগরিকদের হতাহতের বিষয়টি যাচাই করা সম্ভব নয়।

জাতিসংঘ আরও জানায়, ইরাকের পশ্চিমাঞ্চলীয় আনবার প্রদেশে গত বছরের মে, জুলাই, আগস্ট এবং ডিসেম্বর মাসে বেসামরিক নাগরিকদের হতাহতের বিষয়টি পরিসংখ্যানে অন্তর্ভুক্ত হয়নি।

ইউএনএএমআই-এর তথ্য মতে, ২০১৬ সালে কমপক্ষে ১২ হাজার ৩৮৮ জন বেসামরিক লোকজন নিহত হয়েছেন।

জাতিসংঘের ডিসেম্বর মাসের হতাহতের তথ্যানুযায়ী, ৩৮৬ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত এবং এক হাজার ৬৬ জন আহত হয়েছেন। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ইরাকের উত্তরাঞ্চলের প্রদেশ নিনেভাতে। সেখানে সরকারি বাহিনী আইএসের নিয়ন্ত্রণে থাকা মসুল শহর দখলমুক্ত করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মসুল শহরে গত মাসে ২০৮ জন নিহত এবং ৫১১ জন আহত হয়েছেন। রাজধানী বাগদাদে ১০৯ জন বেসামরিক নিহত এবং ৫২৩ জন আহত হয়েছেন।

ইরাকে জাতিসংঘের মহাসচিবের বিশেষ প্রতিনিধি জান কুবিস জানান, এতে কোনো সন্দেহ নেই মসুলে আইএসের ক্ষতি থেকে মনোযোগ সরানোর একটি চেষ্টা করা হচ্ছে। দুর্ভাগ্যবশত নিরাপরাধ বেসামরিক লোকজন এর মাসুল দিচ্ছে।

শুধুমাত্র গত সপ্তাহে বাগদাদে বোমা হামলায় ৫০ জনের বেশি নিহত হয়। এ হামলা আইএস চালিয়েছে বলে দাবি করেছে। তবে বাগদাদে সবচেয়ে ভয়াবহ হামলার ঘটনা ঘটে জুলাই মাসে। সেখানকার একটি বাজারে আত্মঘাতী বোমা হামলায় প্রায় ৩০০ জন নিহত হন। গত ১৩ বছরের মধ্যে বাগদাদে কোনো একক হামলায় এত মানুষ মারা যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন ইরাকি বাহিনী মসুল থেকে আইএস জঙ্গিদের উৎখাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এটিই ইরাকে আইএস নিয়ন্ত্রণাধীন সর্বশেষ ও শক্তি ঘাঁটি।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম