সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জঙ্গিবাদের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ‌্যমে রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ড. ওয়াজেদ মিয়া রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেইনিং ইন্সটিটিউট ভবন এবং এক হাজার আসনের শেখ হাসিনা ছাত্রী হলের ভিত্তি স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের ‍ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া শিখবে। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। সেই ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হবে। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস থেকে ছাত্রছাত্রীদের মুক্ত রাখতে হবে। এটা যেন দানা বাঁধতে না পারে।”

সত্যিকার শিক্ষা যদি কেউ পায়, সে বিপথে যেতে পারে না বলে মন্তব‌্য করেন সরকারপ্রধান।

চলতি শতকের শুরুর দিকে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠা জঙ্গিবাদ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় অনেকটা নিয়ন্ত্রণে এসে বলে মনে করা হলেও তিন বছর আগে দেশে নতুন করে উগ্রপন্থি হামলা-হুমকি শুরু হয়।

একের পর এক ব্লগার, অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট, ভিন্ন মতাবলম্বী হত‌্যার শিকার হওয়ার মধ‌্যেই গতবছর ১ জুলাই ঢাকার গুলশানে নজিরবিহীন জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে, যা আন্তর্জাতিক অঙ্গণেও আলোচিত হয়।

এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক অভিযানের মধ্যে জঙ্গিবাদের বিস্তারের নতুন তথ‌্য বেরিয়ে আসে, যা শঙ্কার জন্ম দেয়। দেখা যায়, কওমি মাদ্রাসার ছাত্রদের পাশাপাশি সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ‌্যালয়ে পড়ুয়া স্বচ্ছল পরিবারের তরুণরাও জঙ্গিবাদে জড়িয়ে বিভিন্ন হামলায় অংশ নিচ্ছে।

এরপর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি অভিভাবকদের সচেতন করতে সরকারের তরফ থেকে নানা ধরনের উদ‌্যোগ নেওয়া হয়।

ইসলামকে ‘শান্তির ধর্ম’ হিসেবে বর্ণনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “ইসলাম ধর্মে জঙ্গিবাদের স্থান নাই। এই ধর্ম মানুষকে খুন করতে বলে নাই।”

রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের জন‌্য একটি হল এবং ড. ওয়াজেদ রিসার্চ ইনস্টিটিউট ভবন নির্মাণের জন‌্য সাড়ে ৯৭ কোটি টাকার প্রকল্প ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে একনেকের অনুমোদন পায়। স্থাপনা দুটির নির্মাণ কাজ ২০১৮ সালের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম