সংবাদ শিরোনাম

 

ক্রীড়া ডেস্ক : নিউজিল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানিয়ে বড্ড ভুল করেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা! ম্যাচ শেষে স্কোরবোর্ড দেখলে তাই মনে হবে। ব্যাটিং বান্ধব উইকেটে আগে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়ে নিউজিল্যান্ড ৭ উইকেটে ১৯৫ রান করে। জবাবে বাংলাদেশ ১৪৮ রানে গুটিয়ে ৪৭ রানের বড় ব্যবধানে পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ গ্রহণ করে।

স্কোরবোর্ডে পাহাড় সমান টার্গেট থাকলেও বাংলাদেশ ছিল আত্মবিশ্বাসী। শুরুতে তিন নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানকে হারিয়েও মাশরাফির দল বিশ্বাস রেখিছিল কিউইদের দেওয়া টার্গেট টপকে যাবে। সে লক্ষ্যে সৌম্য ও সাব্বির দারুণ প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। ৪০ বলে দু’জন ৬৮ রান যোগ করেন। কিন্তু মাত্র ১০ বল ও ১৪ রানের ব্যবধানে দুজন সাজঘরের পথ ধরলে বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। শেষ ৬ উইকেট হারায় মাত্র ৪৪ রানে। নাটকীয় ব্যাটিং ধসে সিরিজ খোয়ায় বাংলাদেশ।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার মতে সৌম্য ও সাব্বিরের উইকেটে ‘মোমেনটাম’ হারায় বাংলাদেশ। পরবর্তীতে ফিরে আসেনি সেই ‘মোমেনটাম’ ও হাতের মুঠোয় থাকা ম্যাচ। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বলেন,‘ওদের ১৯৫ রানের পরও আমরা আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। আমাদের শুরুটা ইতিবাচক ছিল যদিও আমরা দ্রুত ৩টি উইকেট হারাই। ৩ উইকেট হারানোর পর আমরা ইতিবাচক ব্যাটিং করছিলাম। আমরা আমাদের টার্গেটের পথেই ছিলাম। কিন্তু সৌম্য ও সাব্বিরের উইকেটের পর আমরা দ্রুত উইকেট হারাই।’

‘বোলিং আমরা ১৫ রান অতিরিক্ত দিয়ে দিয়েছি। এখানে ১৮০ রান হলেও রান তাড়া করা যায়। আমাদের দুজন সেট ব্যাটসম্যান ছিল, ওরা আরেকটু খেলতে পারলেই হত। কিন্তু তাদের ফিরে আসার পর আমরা আর পারিনি। বোলিংয়েও আমরা শুরুতেই ৩ উইকেট তুলে নিই। কিন্তু পরবর্তীতে ওরা অ্যাটাক করে আমাদের উপর।’-যোগ করেন মাশরাফি।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি সিরিজ এরই মধ্যে হারিয়েছে মাশরাফির দল। শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ ৮ জানুয়ারি। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ হোয়াইটওয়াশ এড়াতে পারে কিনা সেটা দেখার বিষয়।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম