সংবাদ শিরোনাম

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তানকে দুটি টহল জাহাজ দিয়েছে চীন। চীন-পাকিস্তান ইকোনমিক করিডোরের (সিপেক) অংশ হিসেবে জলপথের নিরাপত্তায় চীনের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করবে জাহাজ দুটি।

পাকিস্তান নৌবাহিনীর কমান্ডার ভাইস অ্যাডমিরাল আরিফুল্লাহ হুসাইনি শনিবার চীনা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে জাহাজ দুটি গ্রহণ করেন। আঞ্চলিক দুটি নদীর নামের সঙ্গে মিল রেখে জাহাজ দুটির নামকরণ করা হয়েছে পিএমএসএস হিঙ্গল ও পিএমএসএস ব্যাসোল।

ডন নিউজে হুসাইনির বক্তব্য উদ্ধৃত করা হয়েছে এভাবে : ‘আজ থেকে জাহাজ দুটি পাকিস্তান নৌবাহিনীর অংশ হলো এবং জলভাগে এই দুটি জাহাজ যুক্ত হওয়ায় পাকিস্তানের নৌবাহিনীর শক্তি আরো বাড়ল।’ তিনি আরো বলেন, পাকিস্তান ও চীনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হয়েছে এবং দিন দিন সমুদ্রের চেয়েও গভীর হচ্ছে।

দাশত ও ঝোব নামে আরো দুটি জাহাজ পাকিস্তানকে দিতে যাচ্ছে চীন। এ দুটির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। শিগগিরই পাকিস্তানের হাতে হস্তান্তর করা হবে।

চীন-পাকিস্তান অর্থনেতিক করিডোরের নিরাপত্তায় এরই মধ্যে সেনাবাহিনীর নতুন ডিভিশন তৈরি করেছে পাকিস্তান। গোয়াদর বন্দর ও সিপেক জলপথের নিরাপত্তায় কাজ করবে নতুন এই ডিভিশন। রাহিল শরিফ পাকিস্তানের সেনাপ্রধান থাকা অবস্থায় নতুন এ ডিভিশন খোলা হয়।

সিপেকের ফলে চীন-পাকিস্তানের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্যের নতুন দুয়ার উম্মোচিত হচ্ছে। পাকিস্তান থেকে চীনে তেল রপ্তানি হবে আবার চীন থেকে সহজে অন্যান্য পণ্য পাকিস্তানে রপ্তানি হবে। সড়ক, রেল, নৌ, পাইপলাইন ও অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে যুক্ত হচ্ছে দুই দেশ। এ বাবদ ৫৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করা হয়েছে। অবকাঠামো নির্মাণের কাজ চলছে।

পাকিস্তানের সঙ্গে চীনের সুসম্পর্ক তৈরি হওয়ায় স্বাভাবিকভাবে উদ্বেগে পড়েছে ভারত।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম