সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : দ্যা ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের ৪৭তম বার্ষিক সভায় যোগ দিতে সুইজারল্যান্ডের লাভোস শহরের উদ্দেশ্যে রাতে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রবিবার রাত ১০:৪০ মিনিটে শেখ হাসিনা ও তাঁর সফরসঙ্গীদের বহনকারী ইত্তেহাদ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে উড্ডয়ন করে।

প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফরসঙ্গীরা আরব আমিরাতের আবুধাবি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ট্রানজিট বিরতি নিয়ে কানেকটিং ফ্লাইটে ডাভোস শহরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেবেন। আবুধাবিতে সোয়া এক ঘণ্টার মতো যাত্রাবিরতি করবেন।

সব মিলিয়ে সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৬.৪৫টায় হাসিনা ও সফরসঙ্গীরা জুরিখ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে গিয়ে পৌঁছাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

প্রথমবারের মতো কোনো নির্বাচিত সরকার প্রধান হিসেবে বাংলাদেশ থেকে শেখ হাসিনা ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের সম্মেলনে যাচ্ছেন।

সরকারি-বেসরকারি সহযোগিতার মাধ্যেম একটি স্বাবলম্বী পৃথিবী নির্মাণের জন্য ১৯৭১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় আন্তর্জাতিক সংগঠন ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম।

দারিদ্র বিমোচনের নানা কৌশল এবং পদক্ষেপ সম্পর্কিত বিশেষজ্ঞ পর্যায়ের জ্ঞান ও দক্ষতার অধিকারী ব্যক্তিরা প্রতিবছর এই ফোরামের সম্মেলনে যোগ দিয়ে নিজেদের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন।

প্রতিবছরের শুরুতে বিশ্ব নেতারা ফোরামের সম্মেলনে যোগ দিয়ে গেল বছরের নানা প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি এবং নতুন বছরের নানা চ্যালেঞ্জ এবং সম্ভাবনা নিয়ে নিজেদের মধ্যে নানা অভিজ্ঞতা এবং পরামর্শ বিনিময় করেন।

অন্যান্যদের মধ্যে নবনিযুক্ত জাতিসংঘ মহাসচিব এন্তনিও গুতেরেস এই সম্মেলনে যোগ দিবেন বলে আশা করা হচ্ছে। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের নির্বাহী পরিচালক ক্লাউস শোয়াব’র বিশেষ আমন্ত্রণে শেখ হাসিনা সরকারি প্রতিনিধি দল নিয়ে সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন।

এর আগে সর্বশেষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান ফখরুদ্দিন আহমেদ এই সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন।

২০১৭ সালের এই ফোরাম সম্মেলনে শেখ হাসিনার সঙ্গীদের মধ্যে আছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এবং আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমকে এর আগে জানিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মেলনে দারিদ্র বিমোচনে রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের সাফল্য তুলে ধরবেন এবং অন্যান্য দেশের দারিদ্রহ্রাসে মূল্যবান পরামর্শ প্রদান করবেন।

এদিকে হাসিনার সুইজারল্যান্ড সফরকে কেন্দ্র করে সর্ব ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের  নেতাকর্মী এবং প্রবাসীদের মধ্যে সাড়া পড়েছে। আনুষ্ঠানিক কর্মসূচির বাইরে, শেখ হাসিনা প্রবাসীদের সাথে বিশেষ মতবিনিময় সভায় মিলিত হবেন বলে জানা গেছে।  ফোরামের মিটিং নানা পর্বে অনুষ্ঠিত হয়ে শেষ হবে ২০ জানুয়ারি। ২১ জানুয়ারি সকালে প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরে আসবেন বলে জানা গেছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম