সংবাদ শিরোনাম

 

ফুলবাড়ীয়া প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ফুলবাড়ীয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক সারোয়ার হোসাইনের ওপর হামলার ঘটনায় ফুলবাড়িয়া থানায় ৫ জনের নামে ও আরও ৫/৭ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে হত্যা চেষ্টার মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোববার এই মামলা দায়ের করেন সারোয়ারের বড় ভাই আনোয়ার হোসেন। মামলার এজাহারভুক্ত আসামীরা হচ্ছেন- উপজেলার জোরাবাড়িয়ার চান মিয়ার পুত্র মিলন মিয়া (২৩), লাহেরীপাড়ার চান মিয়ার পুত্র এনামুল হক (২২), পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাবুল মিয়ার পুত্র রাকিব হাসান (২১), ৮ নম্বর ওয়ার্ডের হেকমত আলীর পুত্র মোছা আলম (২৩) ও ভাটিপাড়ার সুরুজ্জামানের পুত্র শফিকুল ইসলাম রাজু (২০)।
মামলা দায়েরের পর পুলিশ গত রাতে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত আসামী শফিকুল ইসলাম রাজুকে গ্রেফতার করেছে।

ফুলবাড়ীয়া থানার ওসি রিফাত খান রাজিব মামলা দায়েরের কথা স্বীকার করে বলেন, রাতেই অভিযান চালিয়ে শফিকুল ইসলাম রাজু নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আসামীকে সোপর্দ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, বাকী আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান চলছে।

এদিকে সারোয়ারের ওপর হামলাকারীদের ৭২ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতাররের দাবিতে আল্টিমেটাম দিয়ে আন্দোলনে নেমেছে স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। গতকাল ছাত্রলীগ উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রাকিব বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, হামলাকারী সন্ত্রাসীরা ছাত্রলীগের কোন নেতাকর্মী না, তারা ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী। আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ প্রশাসনকে ৭২ ঘন্টার সময় দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ ব্যর্থ হলে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেয়ার কথাও জানান রাকিব।

উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের আভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরে মিলনের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা শনিবার রাতে উপজেলা সদরে হাজী ছাবেদ প্ল াজার গলিতে ডেকে নিয়ে সারোয়ারকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে । বর্তমানে তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম