সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : নতুন নির্বাচন কমিশন( ইসি) গঠন প্রসঙ্গে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, রাষ্ট্রপতির প্রতি আমাদের আস্থা আছে। তবে রাজনৈতিকভাবে রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হলে তা মেনে নেওয়া হবে না।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।

সার্চ কমিটি প্রসঙ্গে আলাল বলেন, আবার যদি আওয়ামী লীগের পৃষ্ঠপোষক, তাদের দোসর কোন ব্যক্তিকে প্রধান করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়, তাহলে জনগণ মেনে নেবে না। আর বিএনপি যেহেতু জনগণের অধিকার নিয়ে কাজ করে সুতরাং এটি বিএনপিও মেনে নেবে না। এর বিরুদ্ধে যতোরকম ব্যবস্থা নেওয়া দরকার বিএনপি নিবে।’

তিনি বলেন, ‘সংলাপ ও আলোচনার মাধ্যমে সকলের উপস্থিতিতে নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য খালেদা জিয়াই প্রথম রাষ্ট্রপতির কাছে প্রস্তাবনা দিয়েছেন। কিন্তু এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যে অস্থিরতা দেখা যাচ্ছে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ অন্য নেতারা রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্ত নিয়ে একেক জন একেক রকম কথা বলছেন। তাদের কথার মধ্যেই অস্থিরতা রয়েছে।’

এসময় তিনিনারায়ণগঞ্জের সাত খুনের মামলার রায় নিয়ে জনগণ শঙ্কিত বলেও মন্তব্য করেন।

বিএনপির এই নেতা বলেন, নারায়ণগঞ্জ হত্যা মামলার রায় নিয়ে মানুষের কাছে ভুল তথ্য দেওয়া হচ্ছে। কারণ এখনও রায় বাস্তবায়নে বেশ কয়েকটি ধাপ রয়েছে। এ সরকার বড় গলায় বলে বিচার বিভাগ স্বাধীন আছে তার প্রমাণ পাওয়া যাবে উচ্চআদালতে এই রায় বলবত থাকলে। তবে মামলার রায় হলেও রায় কার্যকর নিয়ে শঙ্কিত দেশের জনগণ। কারণ বর্তমান রাষ্ট্রপতির আমলেই, অনেক মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তদের মুক্তি দেওয়া হয়েছে। আর যাদের মুক্তি দেওয়া হয়েছে তাদের বেশিরভাগই আওয়ামী লীগ। এই মামলায় যারা ফাঁসির আসামি তাদের যদি আবার রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করে দেয় তবে আইনের শাসন কার্যকর হবে না। মানুষের প্রত্যাশাও পূরণ হবে না।’

দেশের টাকা বিদেশে পাচার হওয়া নিয়ে আলাল বলেন, দেশের টাকা প্রতিবছরই বিদেশে পাচার হয়ে যাচ্ছে। কত টাকা বিদেশে পাচার হচ্ছে তার হিসেব সরকারের কাছেও নেই। আর এটি হচ্ছে হ্যাকিং এর মাধ্যমে যার অবদান আওয়ামী লীগের।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শ্যামা ওবায়েদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান, হারুন অর রশিদ, সহ দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন, ছাত্রদলের দফতর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম