সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করলেও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি আসবেই বলে মনে করেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের শরিক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে কোনঠাঁসা হয়েছে পড়ছে বিএনপি। নিঃশ্বাসে ফেলা সুযোগ হিসেবে আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে চায় তারা।’

দুপুরে রাজধানীতে এক আলোচনায় এ কথা বলেন ইনু। ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে শহীদ আসাদ স্মরণে জাতীয় প্রেসক্লাবে এই আলোচনার আয়োজন করে ১৪ দলের আরেক শরিক সাম্যবাদী দল।

ইনু বলেন, আগামী দুই বছরের মধ্যে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। এই নির্বাচনে জঙ্গি, যুদ্ধাপরাধী ও সাম্প্রদায়িক শক্তিকে পুনর্বাসনের জন্য অংশ নিতে চান খালেদা জিয়া।

ইনু বলেন, খালেদা জিয়া যেন আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে পারেন, সে জন্য অনেকে অপস ফর্মুলা আবিষ্কারের চেষ্টা করেছেন। কিন্তু এই ফর্মুলা আবিষ্কারের কারণে গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়বে।

আগামী নির্বাচনে অংশ নিয়ে খালেদা জিয়া আসলে যুদ্ধাপরাধীদের ক্লাবকে রাজনীতিতে পুনঃপ্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করেন ইনু। বিএনপি নেত্রীকে যুদ্ধাপরাধী,  জঙ্গি, সাম্প্রদায়িক শক্তি ক্লাবের সভাপতি হিসেবেও আখ্যা দেন তিনি।

ইনু বলেন, খালেদা জিয়া প্রকাশ্যে যুদ্ধাপরাধী ও জঙ্গিদের পক্ষে ওকালতি করছেন, যা  তিনি সাম্প্রতিক সময়ে আশকোনার জঙ্গিদের পক্ষেও কথা বলেছেন। এদেরকে বর্জন করার মাধ্যমে চিরদিনের জন্য বাংলাদেশের রাজনৈতিক বিবাদ নিরসন করা সম্ভব।

বর্তমান সরকার সরকার গণতন্ত্র রক্ষার জন্য লড়াই করে যাচ্ছে বলেও দাবি করেন ইনু। বলেন, জঙ্গি,  সন্ত্রাসী এবং সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধেও যু্দ্ধ করে যাচ্ছে সরকার।

দেশের দুই প্রধান দলের দুই নেত্রী বিপরীত মেরুতে অবস্থান করছেন বলেও মন্তব্য করেন জাসদ সভাপতি। বলেন, এই দেশে গণতন্ত্রের ক্লাবের নেতৃত্ব দিচ্ছেন শেখ হাসিনা আর জঙ্গি, সন্ত্রাসী ও সাম্প্রদায়িক ক্লাবের নেতৃত্ব দিচ্ছেন খালেদা জিয়া।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম