সংবাদ শিরোনাম

 

ক্রীড়া ডেস্ক : বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের শেষ টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলায় সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। স্বাগতিকরা দিনের প্রথমার্ধে ভালোই এগিয়ে চলছিল। তবে ৬৫তম ওভারে সাকিব বল হাতে এসে বাংলাদেশ দলকে বেকথ্রু এনে দেন। ২ ওভারেই তিনি ৩টি উইকেট তুলে নেন। এরপর বৃষ্টির কারণে খেলা আর বেশিক্ষণ মাঠে গড়ায়নি। ফলে দিনশেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৬০ রান নিয়ে মাঠ ছেড়েছে স্বাগতিকরা।

এর আগে ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। এটাই বাংলাদেশের এই সফরে শেষ ম্যাচ। ওয়ানডে ও টি২০ সিরিজ আগেই নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিকরা। এখন টেস্ট সিরিজেও প্রথম ম্যাচ জিতে এগিয়ে রয়েছে কেন উইলিয়ামসনের দল। টেস্টের প্রথম দিনে বাংলাদেশ সব উইকেট হারিয়ে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৮৪.৩ ওভারে সংগ্রহ করেছে ২৮৯ রান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দারুণ ব্যাট করছিলেন কিউই ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ৪৫ রানে জিত রাভালের উইকেটটি হারানোর পর ২ রানের ব্যবধানেই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও ফিরেন সাজঘরে। তবে এরপর বেশ ভালোভাবেই দলের হাল ধরেন টম ল্যাথাম এবং রস টেইলর। দলে ১০৬ রান যোগ করার পর ল্যাথাম বিদায় নিলে এ জুটি ভাঙে। ল্যাথাম ১১টি চারের মারে ৬৮ রানে ফিরেছেন।

এরপর বাংলাদেশের জন্য টেইলর বিপজ্জনক হয়ে ‍উঠলে তাকে ফিরিয়ে দলে স্বস্তি ফেরান মেহেদী হাসান মিরাজ। টেইলর মিরাজের বলে ব্যক্তিগত ৭৭ রানে তাইজুল ইসলামের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন।

পরে হেনরি নিকোলাস আর মিচেল স্যান্টনার জুটি গড়ে দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন। ৭৫ রানের জুটি গড়ে তুলেন এ দু’জনে। বাংলাদেশের জন্য এ জুটি আতঙ্ক হয়েই দেখা দিয়েছিল। তবে সাকিবের আঘাতে হঠাৎই বিপর্যস্ত হয়ে উঠে কিউই শিবির। মাত্র ৪ রানের ব্যবধানেই ৩টি উইকেট তুলে নেন সাকিব।

স্যান্টনারকে ২৯ রানে এলবিডব্লিউয়ের শিকার করে সাজঘরে ফেরান সাকিব। এরপর বিজে ওয়াটলিং (১) এবং কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে রানের খাতা খোলার আগেই বোল্ড করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরান। তবে নিকোলাস এখনও ৫৬ রানে অপরাজিত রয়েছেন। পরে বৃষ্টির কারণে দিন শেষ হওয়ার আগেই খেলা শেষের ঘোষণা দেওয়া হয়।

টাইগারদের হয়ে সাকিব নিয়েছেন ৩টি উইকেট। আর কামরুল ইসলাম রাব্বি ২টি এবং তাসকিন আহমেদ ও মিরাজ ১টি করে উইকেট নিয়েছেন।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম