সংবাদ শিরোনাম

 

মো: রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন আগামী  ২০২১ সালের মধ্যে ৬০  বিলিয়ন ডলার মূল্যের পণ্য রপ্তানী করা সম্ভব হবে। তিনি বলেন ১৮৬ টি দেশে ৭২৯ জাতের পণ্য বর্তমানে রপ্তানী করা হচ্ছে। এছাড়াও ১২২ টি দেশে ঔষধ রপ্তানী করে দেশ স্বনির্ভরতা অর্জনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। মন্ত্রী বলেন এই প্রথম দেশে মোটর সাইকেল রপ্তানী শুরু করে রানার অটোমোবাইলস্ কোম্পানী সফলতার শিকরে উপনিত হয়েছে। তিনি বলেন  ৮শত কোটি টাকা বিনিয়োগ করে ২০১১ সালে রানার অটোমোবাইলস্ কোম্পানীটি ভালুকায় স্থাপন করা হয়। কোম্পানীটি দ্রুত উৎপাদনের মাধ্যমে দুই ধরনের মোটর সাইকেল নেপালে আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেট্রিক্র মোটো করপোরেশনের মাধ্যমে রানার আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশ করেছে।  শিল্প ক্ষেত্রে এটি দেশের জন্য একটি গৌরবময় অধ্যায়। তিনি বলেন ৮০ ও ১০০ সি.সি’র মোটর সাইকেল নেপালে রপ্তানির মাধ্যমে কোম্পানীটি আন্তর্জাতিক মানের পণ্য উৎপাদনের যোগ্যতা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। তিনি বলেন আসন্ন বাজেটে দেশীয় শিল্পকে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হবে। তোফায়েল আহম্মেদ বলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবর রহমানের স্বপ্ন ছিল শিল্প বান্ধব অর্থনীতি গড়ে তোলে সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা। এই লক্ষ্য নিয়ে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার দেশে শিল্পায়নের উপযোক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। বাংলাদেশ অপার সম্ভাবনার দেশ হিসাবে উল্লেখ করে বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহম্মেদ বলেন এ সম্ভাবনাকে সম্মিলিতভাবে কাজে লাগাতে হবে। গতকাল দুপুরে ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নের পাড়াগাঁও গ্রামে রানার অটোমোবাইলস্ কোম্পানী ও নেপালের মেট্রিক্র মোটো করপোশনের সাথে সম্পাদিত রপ্তানী চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন শুধু তৈরি পোশাক রপ্তানীর মাধ্যমে সীমাবদ্ধ থাকলে চলবে না। আমাদের রপ্তানীর খাত বহুমূখী করতে হবে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন ভালুকা থেকে নির্বাচিত জাতীয় সংসদ সদস্য  সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. এম আমান উল্লাহ, রানার অটো মোবাইলস্ কোম্পানীর চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান খান, ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন, কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সি.ই.ও মুকেশ শর্মা ও নেপালের আমদারিকারক প্রতিষ্ঠান মেট্রিক্র মোটো করপোরেশনের পক্ষে দিলিপ কুমার কার্না। এর আগে বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহম্মেদ কোম্পানীর চত্বরে হেলিকাপ্টার থেকে অবতরণ করলে রানার অটো মোবাইলস্রে পক্ষ থেকে অভ্যর্থনা জানানো হয়। পরে মন্ত্রী কোম্পানীর মোটর সাইকেল উৎপাদন কারখানা স্বরজমিন পরিদর্শন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রধান মন্ত্রীর একান্ত সহকারী সচিব সাইফুজ্জামান শেকর, জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. গালিফ, ভালুকা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু, ভালুকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল আহসান তালুকদার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম পিন্টু, হবিরবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চুসহ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন টিভি নাট্য অভিনেত্রী নাভিলা করিম। রানারের মিডিয়া ও পি.আর রানার গ্রুপ এর সহমহা-ব্যবস্থাপক ওয়াহিদ মোরাদ জানান, ২০০০ সালে মোটরসাইকেল আমদানি করে বাজারজাত শুরু করে রানার। কয়েক বছর পর প্রতিষ্ঠানটি মোটরসাইকেলের পার্টস সংযোজন শুরু করে। আর  ২০০৭ সালে ভালুকায় রানার বাংলাদেশে প্রথম মোটরসাইকেলের কম্পোনেন্টস্ তৈরীর মাধ্যমে স্থানীয়ভাবে মোটরসাইকেল উৎপাদন শুরু করে- যা বুয়েট এবং বিআরটিএ অনুমোদন দেয়। পরবর্তীতে  ২০১১ সালে রানার পানচিং, ওয়েল্ডিং, পেইন্টিং, এসেম্বলিং, টেষ্টিং, ইত্যাদি মেশিনারীজ স্থাপনের মাধ্যমে মোটরসাইকেল উৎপাদনকারী হিসাবে সরকারী অুনোমেদন লাভ করে। পূর্ণাঙ্গ মোটরসাইকেল কারখানা হিসাবে ২০১২ সালে ৮শত কোটি টাকা বিনিয়োগের মাধ্যমে রানার অটো মোবাইলস্ কোম্পানী পুরোদমে উৎপাদন শুরু  করে। বর্তমানে প্রতি মোটর সাইকেলে ৫শত প্রকারের যন্ত্রাংশ সংযোজনের মাধ্যমে ২৪ ঘন্টায় কোম্পানীটি ৫শতাধিক মোটরসাইকেল উৎপাদন করছে।  ইতিমধ্যে ভালুকায় স্থাপিত কারখানায় মোটরসাইকেলে গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রাংশ যথা: চেচিস, রিয়ার ফেরক, ফুয়েল ট্যাঙ্ক, মেইন স্ট্যান্ড, সাইড স্ট্যান্ড, ফুট পিগ ইত্যাদি তৈরি এবং ইঞ্জিন সংযোজন করা হচ্ছে। এ সকল যন্ত্রাংশ রং করার জন্য অত্যাধুনিক পেইন্ট শপ স্থাপন করা হয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম