সংবাদ শিরোনাম

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : দায়িত্ব নেবার পর প্রথম দিন অফিসে বসেই গণমাধ্যমকে এক হাত দেখে নিলেন নবনিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি সাংবাদিকদের ‘পৃথিবীর সবচাইতে অসৎ মানুষ’ বলেও অভিহিত করেন।

ট্রাম্প অভিযোগ করেন, তার শপথ দেখতে আসা জনসমাগমের আকার নিয়ে মিথ্যাচার করছে গণমাধ্যম। এজন্য তাদেরকে ধরা হবে এবং চড়া মূল্য দিতে হবে।

ট্রাম্প দাবি করেন, ২০ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে তার অভিষেক অনুষ্ঠান দেখতে দশ লাখেরও বেশি মানুষ এসেছিল। এত মানুষ হয়েছিল যে তারা ওয়াশিংটন মনুমেন্ট পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছিল। কিন্তু সরাসরি সম্প্রচারিত ভিডিওতে সংখ্যাটা সঠিকভাবে তুলে ধরা হয়নি।

পরে হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র সন স্পাইসার সাংবাদিকদের বলেন, ট্রাম্পের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে স্মরণকালের সবচাইতে বেশি সংখ্যক মানুষ জড়ো হয়েছিল। কিন্তু সেটাকে খুব ভুলভাবে উপস্থাপন করেছেন সাংবাদিকেরা।

স্পাইসার আরো বলেন, হোয়াইট হাউজ এজন্য সংবাদমাধ্যমকে দায়ী করবে। হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি হিসেবে এটাই প্রথম সংবাদ সম্মেলন ছিল সন স্পাইসারের।

এদিকে শনিবার ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেয় প্রায় পাঁচ লাখেও বেশি বিক্ষোভকারী। ওয়াশিংটন ছাড়িয়ে এই বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে গোটা দেশে। নারীদের ডাকা এই বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীদের সংখ্যা ট্রাম্পের অভিষেক অনুষ্ঠানে আসা সমর্থকদের চেয়ে বেশি বলে কোন কোন গণমাধ্যমের খবরে দাবি করা হয়।

যদিও ট্রাম্প কিংবা হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ সম্পর্কে কোন কথাই বলা হয়নি।

গণমাধ্যমের ওপর ক্ষোভ ছেড়ে ট্রাম্প বলেন, শুক্রবারে কোন কোন মিডিয়াতে এভাবে খবর দেখানো হয়, যেনো সেখানে মাত্রা আড়াই লাখ লোকের জমায়েত হয়েছে। পুরো জনসমাগমের চিত্র দেখানোই হল না।

এদিকে অনেক মিডিয়া প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০০৯ সালে বারাক ওবামার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যতো লোকসমাগম হয়েছিল, ট্রাম্পের ক্ষেত্রে সেই সংখ্যাটা অর্ধেকেরও কম।

এই প্রসঙ্গে স্পাইসার হুঁশিয়ারি উচ্চারন করে বলেন, ‘ট্রাম্পের প্রেসিডেন্টসি ও তার প্রশাসন সম্পর্কে প্রতিবেদন করুন। না হলে সেই সব গণমাধ্যমকে জবাবদিহি করতে হবে।’

তবে এখানে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্টসি বলতে কি বোঝানো হয়েছে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু বলেননি তিনি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম