সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর : গাজীপুরে হত্যা মামলায় তিন ভাই ও ভগ্নিপতিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সোমবার দুপুরে গাজীপুরের অতিরিক্ত দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচার মো. ইকবাল হোসেন এ রায় দেন। রায়ে একই সঙ্গে আসামিদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ থানার রামচন্দ্রপুর গ্রামের মো. সোবাহানের ছেলে মো. মাসুদ, সানাউল্লাহ, নূরে আলম উরফে ময়না ও তাদের ভগ্নিপতি বরিশালের কোতয়ালি থানার হরিনাফুলিয়া গ্রামে গণি শিকদারের ছেলে আনোয়ার শিকদার।

রায় ঘোষণাকালে নুরে আলম ওরফে ময়না উপস্থিত থাকলেও অপর তিন আসামি পলাতক রয়েছে।

গাজীপুর আদালতের আইনজীবী মো. হাফিজ উল্লা দরজি জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২০০৪ সালে ১৫ এপ্রিল বিকালে কালীগঞ্জে রামচন্দ্রপুর এলাকার শামসুল হক দরজিকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় মাসুদ ও তার ভাই সানাউল্লাহ। এক পর্যায়ে তারা লাঠি দিয়ে শামসুল হককে মারধর করে। এসময় পূর্ব থেকে ওঁৎপেতে নুরে আলম ওরফে ময়না ও তার ভগ্নিপতি আনোয়ার শিকদারও শামসুল হক দরজিকে এলোপাথাড়ি মারধর করতে থাকে। এসময় মাসুদের হাতে থাকা ছুরি দিয়ে শামসুল হকের বুকে আঘাত করে।

তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে আসতে থাকলে শামসুল হকেকে রক্তাক্ত আহতাবস্থায় ফেলে রেখে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শামসুল হক দর্জিকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

পর দিন নিহতের স্ত্রী হাফেজা বেগম বাদী হয়ে ওই চারজনকে আসামি করে কালীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আবুবকর সিদ্দিক তদন্ত শেষে একই বছরের ১০ অক্টোবর ওই চারজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

দীর্ঘ শুনানি শেষে ঘটনার ১৩ বছর পর সোমবার আদালত এ রায় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট মো. হাফিজ উল্লা দরজি। আসামি পক্ষে মামলা পরিচলানা করেন অ্যাডভোকেট মো. সুলতান উদ্দিন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম