সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : সাবেক মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর পদত্যাগের পর শূন্য ঘোষণা করা টাঙ্গাইল-৪ আসনের উপনির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আজ ইসির পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ৩১ জানুয়ারি এই আসনটিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

২০১৪ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে স্থানীয় টাঙ্গাইল সমিতি আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পবিত্র হজ ও তাবলিগ জামাত নিয়ে বিরূপ করেন আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। পরে সমালোচনার মুখে মন্ত্রিত্ব হারানোর পাশাপাশি তাকে হারাতে হয় দলীয় পদও। ২০১৫ বছরের ১ সেপ্টেম্বর স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি। ৬ সেপ্টেম্বর আসনটি শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন প্রজ্ঞাপন জারি করে। পরে ২০১৫ সালের ১০ নভেম্বর আসনটিতে ভোটগ্রহণের তারিখ ঘোষণা করে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

তফসিল ঘোষণার পর উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র জমা দেন লতিফ সিদ্দিকীর ভাই কাদের সিদ্দিকী। তবে ঋণ খেলাপের অভিযোগে ২০১৫ সালের ১৩ অক্টোবর তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এ আদেশ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন কাদের সিদ্দিকী।

গত বছরের ৪ ফেব্রুয়ারি কাদের সিদ্দিকীর করা রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি জাফর আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ জারি করা রুল ও ‍রিট খারিজ করে দেন। কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বৈধ নয় বলে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া সিদ্ধান্ত বহাল রাখেন আদালত।

এরপর হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে চেম্বার বিচারপতির আদালতে আপিল আবেদন করেন কাদের সিদ্দিকী। ওই বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী আবেদনটি শুনানির জন্য পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। শুনানি শেষে গত বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগও কাদের সিদ্দিকীর করা আবেদন খারিজ করে দেন। এর ফলে নির্বাচনআয়োজনে সব বাধা দূর হয়।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম