সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : ৮৪ বছরে পা দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ১৯৩৪ সালের ২৫ জানুয়ারি সিলেটের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। সে হিসাবে বুধবার (২৫ জানুয়ারি) তার ৮৩তম জন্মবার্ষিকী।

তার বাবা আবু আহমদ আবদুল হাফিজ ছিলেন পাকিস্তান আন্দোলনের অন্যতম নেতা। তৎকালীন সিলেট জেলা মুসলিম লীগের কর্ণধার ছিলেন তিনি। মা সৈয়দা শাহার বানু চৌধুরীও রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। মুহিত তাদের তৃতীয় সন্তান। আবুল মাল আবদুল মুহিতের স্ত্রী সৈয়দা সাবিয়া মুহিত একজন ডিজাইনার। তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ের জনক।

ছাত্রজীবন থেকেই আবুল মাল আবদুল মুহিত অত্যন্ত মেধাবী। ১৯৫৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতক (সম্মান) পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণিতে প্রথম এবং ১৯৫৫ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেন। ছাত্রাবস্থায় তিনি সলিমুল্লাহ হল ছাত্র সংসদের যুগ্ম সম্পাদক এবং ভিপি নির্বাচিত হন। সে সময় তিনি ভাষা আন্দোলনে অংশ নেন। ১৯৫৬ সালে পাকিস্তান সিভিল সার্ভিসে (সিএসপি) যোগদানের পর মুহিত তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক ও কেন্দ্রীয় সরকার এবং পরে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন।

চাকরিরত অবস্থায় তিনি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেন এবং হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতির ওপর এমপিএ ডিগ্রি লাভ করেন। এ ছাড়া ওয়াশিংটন দূতাবাসের তিনি প্রথম কূটনীতিক, যিনি ১৯৭১ সালের জুনে স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় পাকিস্তানের পক্ষ ত্যাগ করে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আনুগত্য প্রদর্শন করেন এবং যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

তিনি বিশ্বব্যাংক ও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ), ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংক (আইডিবি) ও জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থায় কাজ করেছেন। প্রশাসনিক ও মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক গ্রন্থ ছাড়াও বিভিন্ন বিষয়ে তার ২১টি গ্রন্থ রয়েছে। এ ছাড়া তার অসংখ্য গবেষণামূলক লেখা দেশি-বিদেশি পত্রপত্রিকায় ছাপা হয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম