সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেছেন, বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। শিক্ষাসহ প্রতিটি সেক্টরে যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে। নানা প্রতিকূলতা অতিক্রম করেই বাংলাদেশ এসব অগ্রগতি অর্জন করেছে।

শনিবার ঢাকার বকশীবাজারে অবস্থিত কে এল জুবলী (কিশোরী লাল জুবলী) স্কুল অ্যান্ড কলেজের সার্ধশতবার্ষিকী (১৫০ বছর) উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের উদ্দেশ্য শিক্ষার হার ১০০ ভাগ বৃদ্ধি করা। আর এ উদ্দেশ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। অতীতে কোনো সরকারই শিক্ষাক্ষেত্রে এত শুভদৃষ্টি দেয়নি। এখন বছরের প্রথম দিনেই ছাত্রছাত্রীদের হাতে বই তুলে দেওয়া হয়। অতীতে যা কখনই করা হয়নি।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে ডিগ্রি পর্যন্ত মেয়েদের বিনা খরচে পড়ালেখার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান যুগ প্রতিযোগিতার যুগ। তাই ভালোভাবে পড়ালেখা না করলে, ভালো রেজাল্ট না করলে, ভালো সুযোগ পাবার সম্ভাবনা কমে যাবে।

শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ছাত্রছাত্রীদের প্রতি আপনাদের আরো মনোযোগী হতে হবে। যাতে করে তারা সঠিক পথে পরিচালিত হতে পারে। কেউ যেন ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে এই সব কোমলমতি ছেলেমেয়েদের ভুল পথে পরিচালিত করতে না পারে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট কবি নির্মলেন্দু গুণ বলেন, আজকের দিনটি বিশষ গৌরবের। ১৫০ বছর আগে বুড়িগঙ্গা নদীর তীর ঘেঁষে জমিদার কিশোরী লাল রায় এই স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তখনকার দিনে এই রকম একটা উদ্যোগ ছিল খুব কঠিন কাজ। সেই হিসেবে এই স্কুলটি তৎকালীন এই অঞ্চলে শিক্ষা বিস্তারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কে এল জুবলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি মো. সাঈদ।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম