সংবাদ শিরোনাম

 

ভৈরব প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জের ভৈরব বাজার রেলওয়ে জংশন স্টেশন থেকে অজ্ঞানপার্টি চক্রের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে রেলওয়ে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিকেলে তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

আজ বৃহস্পতিবার ভোরে গ্রেপ্তার করা হয়ে বলে জানিয়েছেন ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি আব্দুল মজিদ।

ভৈরব রেলওয়ে পুলিশ জানায়, রেলওয়ে স্টেশনের ১ নম্বর প্লাটফর্মে কিশোরগঞ্জের কুরিয়ারচর উপজেলার মাধবদী গ্রামের মো. আতর মিয়ার ছেলে আলামিনকে (৩১) লোজিকাম ট্যাবলেট মিশ্রিত স্পিড এনার্জি ড্রিংকস পান করিয়ে অজ্ঞান করে তার সঙ্গে থাকা ৪ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। সে সময় প্লাটফর্মে কর্তব্যরত জিআরপি পুলিশ বিষয়টি টের পেয়ে  লোজিকাম ট্যাবলেট ও স্পিড ডিংকসসহ অজ্ঞানপার্টি চক্রের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার হওয়া অজ্ঞানপার্টি চক্রের সদস্যরা হলো- কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী বেতর গ্রামের মৃত মুসলিমের ছেলে রফিক (২৪), কটিয়াদীর দেয়ালেরকান্দার চান্দুপুরের মৃত সাজু মিয়ার ছেলে মুকুল মিয়া (৩০), মিঠামইন উপজেলার কান্দিপাড়া তিলেঠাই গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফ মিয়ার ছেলে মো. বিল্লাল হোসেন (৩১) এবং ভৈরবের জগন্নাথপুর-লক্ষ্মীপুর গ্রামের মৃত উমর আলীর ছেলে সেন্টু মিয়া ওরফে জিদান (২৭)।

ভৈরব রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুল মজিদ জানান, গ্রেপ্তার ওই চার ব্যক্তি অজ্ঞানপার্টি চক্রের সক্রিয় সদস্য। তারা দীর্ঘদিন ধরে ভৈরবসহ দেশের বিভিন্নস্থানে ট্রেন ও বাস যাত্রীদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলে। পরে আপ্যায়নের নামে কৌশলে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে অজ্ঞান করে যাত্রীদের সর্বস্ব লুটে নেয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ চক্রের সদস্য সংখ্যা ৩০ জনের বেশি বলে শিকার করেছে  তারা।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম