সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানে ছাত্রদের গা মাড়ানোর ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বলেন, ‘কোনো ঘটনাই সরকার অগ্রাহ্য করেনি। ইতিমধ্যে আমরা তদন্ত কমিটি করে দিয়েছি। সেখানে আমরা লোক পাঠিয়েছি। আমাদের অফিসাররা সেখানে গিয়েছেন। তদন্ত রিপোর্ট আসলে সে অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নেব।’

শুক্রবার সকালে রাজধানীতে এক সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যমকর্শীদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী। বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর (ব্যানবেইস) সম্মেলন কক্ষে এই সংবাদ সম্মেলন করেন শিক্ষামন্ত্রী।

৩০ জানুয়ারি চাঁদপুর হাইমচর উপজেলার নীলকমল ওসমানিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের তৈরি একটি ‘মানবসেতু’তে উপজলো চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারির হাঁটার ছবি ভাইরাল হয়। এই ঘটনায় মামলা হয়েছে তার বিরুদ্ধে। চলছে তদন্তও।

এ নিয়ে সমালোচনার রেশ কাটতে না কাটতে জামালপুরে একই ধরনের একটি ঘটনার ছবি প্রকাশ হয়। জেলার মেলান্দহ উপজেলায় মাহমুদপুর বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের একই ধরনের ‘মানবসেতু’ পার হন ওই স্কুলের জমিদাতা দিলদার হোসেন প্রিন্স। এই ঘটনায়ও তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে, সেখানেও প্রশাসনিক তদন্ত শেষে প্রতিবেদনের অপেক্ষায় জেলা প্রশাসক।

এই দুটি ঘটনার পর পর প্রকাশ হয় নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শহিদ উল্লাহর খেলোয়াড়দের বুকের উপর হাঁটার ছবি। এই ঘটনাটি ঘটে গত বৈশাখে।

শিক্ষামন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনে জানতে চাওয়া হয়, অন্য কোনো স্কুলে যেন এমনটা না হয়, সে জন্য সরকার কী ব্যবস্থা নিচ্ছে। জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এটা ইগনোরর করিনি। সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা যা নেয়ার নিয়েছি। এখন তদন্তে কী রিপোর্ট আসলো সেটা না জেনে তো আমরা ব্যবস্থা নিতে পারি না।’

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, প্রথমবারের মতো ই নাইন ফোরামের মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলনের আয়োজক হয়েছে বাংলাদেশ। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এই ফোরামের পরবর্তী মেয়াদের চেয়ারম্যান হতে যাচ্ছেন।

এই ফোরামের সদস্যরাষ্ট্র সমূহের শিক্ষা বিষয়ক এসডিজি-ফোর লক্ষ্য অর্জনের লক্ষে আগামী ৫ থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি হোটেল রেডিসন ব্লু ঢাকাতে অনুষ্ঠিত হবে এই সম্মেলন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর উদ্বোধন করবেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ই-নাইন ভুক্ত দেশগুলো বিশ্বের অর্ধেক জনসংখ্যার প্রতিনিধিত্ব করছে বলেই এই প্রোগ্রাম অত্যধিক গুরুত্বের দাবি রাখে। তিনি বলেন, পৃথিবীর প্রাপ্তবয়স্ক নিরক্ষর মানুষের তিন ভাগের দুই ভাগ বাস করে এই দেশগুলোতে। যার কারণে এখানে পরিবর্তন আসলে সারা বিশ্বের শিক্ষা ব্যবস্থার পরিবর্তন আসবে।

সদস্য রাষ্ট্রসমূহের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ এবং তথ্য বিনিময়ের মাধ্যমে ইউনেস্কো’র ‘সবার জন্য শিক্ষা’ কর্মসূচিকে এগিয়ে নেয়া এবং দ্রুততার সাথে সামষ্টিক সাফল্য অর্জনের লক্ষ্যে ১৯৯৩ সালে ভারতের নয়াদিল্লীতে ই নাইন ফোরাম গঠন করা হয়।

এই ফোরামের সদস্যরাষ্ট্রগুলো হলো বাংলাদেশ, ব্রাজিল, চীন, মিশর, ভারত, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, মেক্সিকো ও নাইজেরিয়া।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম