সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাণিজ্যমেলার শেষ দিনের শেষ মুহুর্তে জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। সময় যতো গড়াচ্ছে ততোই জনসমাগম বাড়ছে। তবে, শেষ দিনে যারা মেলায় আসছেন তারা অধিকাংশই কেনাকাটা করছেন।

শনিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার প্রত্যেকটি স্টলে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে।

শেষ দিনে মেলায় দম্পতিসহ এসেছেন সোহরাব হোসেন। তিনি বলেন, আজ মেলা শেষ হচ্ছে। তাই স্ত্রী সাবিনাকে নিয়ে এসেছি কিছু কিনতে।

এছাড়া শেষ দিনে কম দামে দ্রব্যসামগ্রী পাওয়া যায়। মেলায় এসে থ্রি পিস, একটি ব্লেজার ও ছোট্ট সংসারের অনেক কিছুই কেনাকাটা করেছেন। দরদাম করার কোনো সুযোগ নেই। যেটা নেবেন একবারেই নিতে হবে। বললেন সোহরাব।

শেষ মুহুর্তে মেলায় জিনিসপত্র কিনতে এসেছেন বেসরকারি চাকরিজীবী হুমায়রা খানম। জিনিসপত্রের দাম কেমন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আজ আর কেমন দাম হবে? আগে একটি প্রেসারকুকার যে দামে বিক্রি হতো মেলার শেষ দিনে তা ৩শ’ টাকা কমে কিনেছেন। তবে শেষের জিনিসপত্র ভালো হয় না, এটা ঠিক নয়।

আরএফএল প্যাভিলিয়নে কর্মরত নাফিজা ইসলাম বলেন, শেষ মুহুর্তে একদিকে চলছে স্টল গোছানোর কাজ। অন্যদিকে ক্রেতাদের ভিড়ও অন্য দিনের চেয়ে বেশি। কেননা মেলা আজ শেষ। এ কারণে আজ অফার রয়েছে বেশি। ফলে গৃহস্থলীর জিনিসপত্রের প্রতি ক্রেতাদের চাহিদাও বেশি। এজন্য ক্রেতাদের ভিড় বেশি। তবে, বিকেলে এ ভিড় থাকবে কিনা সেটা নিয়ে সন্দেহ আছে।

কেনাবেচা প্রসঙ্গে হাতিল ফার্নিচারের হেড অব ম্যাকেটিং ফিরোজ আল মামুন বলেন, অন্যবারের তুলনায় এবার কেনাবেচা অনেক ভালো হয়েছে। তবে শেষ মুহুর্তে এসে আমাদের চাহিদার চেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে। এতে আমরা খুশি। তবে আমাদের যে টার্গেট ছিলো সেটি পূরণ হয়েছে, আমাদের কর্মচারীদের প্রচেষ্টায়। এর মধ্যে নতুন যারা খণ্ডকালীন চাকরি করেছেন। একমাস তারা অনেক ভালো করেছে।

বিকেলে এক সমাপনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বাণিজ্যমেলার ২২তম আসর শেষ হচ্ছে। ইতোমধ্যে সমাপনী অনুষ্ঠানের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে মঞ্চ।

যেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম