সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ : ‘অকালে স্বামী হারালাম। এখন নাবালক ছেলে-মেয়েকে মানুষ করব কীভাবে। ওদের লেখাপড়ার খরচ কে দেবে। আমি সামনে এখন শুধু অন্ধকার দেখছি। কে দাঁড়াবে আমাদের পাশে।’

শনিবার সকালে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার মাদলা গ্রামে সমকালের অতিরিক্ত বার্তা সম্পাদক তপন দাস ও বিশেষ  প্রতিনিধি রাজীব নূর এই পত্রিকার শাহজাদপুর প্রতিনিধি নিহত আব্দুল হাকিম শিমুলের শোকার্ত স্ত্রী সন্তানদের সান্তনা দেওয়ার সময় এমন আর্তি জানান নুরুন্নাহার বেগম।

আব্দুল হাকিম শিমুল বৃহস্পতিবার দুপুরে শাহজাদপুরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ছবি তুলতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। সমকাল পরিবারের পক্ষ থেকে শনিবার শোকার্ত পরিবারকে সান্তনা দিতে আসেন দুই সিনিয়র সাংবাদিক।

এ সময় নুরুন্নাহার বেগম কথা বলতে গিয়ে ডুকরে ডুকরে কাঁদছিলেন। অসচ্ছল পরিবারের একমাত্র আয়ের উৎস ছিলেন শিমুল। তার মৃত্যুতে পরিবারটি এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে। সমকাল পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের সহযোগিতার আশ্বাস দেন ওই দুই সিনিয়র সাংবাদিক।

এদিকে শনিবার শিমুলের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় শাহজাদপুর পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এবং দ্বিতীয় জানাজা হয় তার গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে। জানাজা শেষে শিমুলকে তার গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজায় হাজার হাজার মানুষ অংশ নেন।

উভয় জানাজায় সমকালের পক্ষ থেকে নির্ভীক সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুলের কর্মজীবনে তার সাফল্য ও অবদান তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন পত্রিকার অতিরিক্ত বার্তা সম্পাদক তপন দাস।

এসময় সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম খান রানা, তাড়াশ প্রতিনিধি আতিকুল হক বুলবুল ও উল্লাপাড়া প্রতিনিধি কল্যাণ ভৌমিক উপস্থিত ছিলেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম