সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : অর্থাভাবা চিকিৎসা আটকে যাওয়া রুমা আক্তারের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রুমার অসহায়ত্বের কথা জানতে পেরে এই সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তার চিকিৎসার জন্য লাখ তিনেক টাকা লাগবে বলে ঢাকাটাইমসকে জানিয়েছেন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক।

নীলফামারী জেলা শহরের সবুজপাড়া মহল্লার পত্রিকার হকার মোবারক খানের মেয়ে রুমা আক্তার। তাকে স্বজনরা আদর করে ডাকেন ইতিমনি বলে।

গত কয়েকমাস ধরে ব্রেইন টিউমারে ভুগছেন নীলফামারী সরকারি কলেজের ইতিহাস বিভাগের অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী রুমা। তিনি চিকিৎসা নিয়েছেন রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতালে। কিন্তু বাড়ি থেকে নিয়ে আসা টাকার সবই শেষ হয়ে গেছে পরীক্ষা নিরীক্ষা করতেই। আর চিকিৎসা শেষ না করিয়েই গত সোমবার বোনকে নিয়ে বাড়ি ফিরতে বাধ্য হন তার ভাই রনি। পেশায় মোটর মেকানিক রনির পক্ষে তার বোনের চিকিৎসার জন্য টাকা যোগাড় করা খুবই কঠিন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অর্থের রুমার চিকিৎসা আটকে যাওয়ার কথা প্রকাশ হয়। শনিবার দুপুরে রুমার জন্য সাহায্য চেয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেন সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা সাজলু লস্কর। এই পোস্টেই রুমার চিকিৎসার দায়িত্ব নেওয়ার ঘোষণা দেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

জাকির হোসাইন বলেন, ‘আমি ফেসবুকে দেখেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তার চিকিৎসার ভার আমার।’

কত টাকা লাগতে পারে এই চিকিৎসায়-জানতে চাইলে ছাত্রলীগ নেতা বলেন, ‘তিন লাখের মতো লাগবে।’

এই টাকা কোত্থেকে আসবে-এমন প্রশ্নের জবাবে জাকির হোসাইন বলেন, ‘বই মেলায় আমার একটা বই আসছে ‘আন্দোলন সংগ্রামে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’ নামে। এর আয়ের একটি অংশ দেবো। আর বাকি টাকা নানাভাবে ব্যবস্থা করে দেবো। এটা কোনো সমস্যা হবে না।’


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম