সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ায় ভ্যানচালক আবু বক্কর সিদ্দিক হত্যা মামলায় ছয় আসামীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টায় কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিজ্ঞ বিচারক রেজা মো আলমগীর হাসান দীর্ঘ শুনানী শেষে জনাকীর্ণ আদালতে চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় প্রদান করেন।

এসময় আদালতে মৃত্যুদণ্ডাদেশ পাওয়া পাঁচ জন আসামী উপস্থিত ছিলেন। এরা হলো, সাজ্জাদ হোসেন, মাজেদ মন্ডল, শুক চাঁদ, কালাই হোসেন, মনছের আলী। দণ্ডাদেশ পাওয়া আসামী রাশিদুল পলাতক রয়েছে। এ মামলার অপর আসামী জামিরুল ইতিপূর্বে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মারা গেছে।

কুষ্টিয়া আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাডভোকেট অনুপ কমার নন্দী জানান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার জোতপাড়া গ্রামের ভ্যানচালক আবু বক্কর সিদ্দিক গত ২০১২ সালের ১০ জুন তারিখে সন্ধ্যায় বাড়ীতে ভ্যান রেখে চায়ের দোকানে বসে ছিল। রাত ১০টার দিকে দিকে আসামীরা পাশের মাঠে নিয়ে গিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পেটে আঘাত করে ও পুরুষাঙ্গ কেটে আলাদা করে নৃশংসভাবে হত্যা করে। পরদিন সকাল ৭টায় জিয়ারখী ইউনিয়নের জোতপাড়া কাঞ্চিখালি মাঠের মধ্যে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, এ ব্যাপারে নিহতের ভাই মুদি দোকানি নুর হক মণ্ডল বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় বিচার কাজ ও দীর্ঘ শুনানী শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতিত ভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আজ বিজ্ঞ আদালতের বিচারক ছয় আসামীকে ফাসিঁতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ ও ৫ হাজার টাকা জরিমানার রায় প্রদান করেন। এ সময় আদালতে দণ্ডপ্রাপ্ত পাচ আসামী এবং বাদী ও বিবাদী পক্ষের লোকজন উপস্থিত ছিলেন। পরে আসামীদের কঠোর নিরাপত্ত্বায় জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়। নিহত ভ্যান চালক আবু বক্কর সিদ্দিক জোতপাড়া গ্রামের আব্দুল জলিল মণ্ডলের ছেলে।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম