সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপি যাই বলুক এই ইসির অধীনেই আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক।

তিনি বলেন, বিএনপি মানুক আর না মানুক, নবগঠিত এ নির্বাচন কমিশনের অধীনেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

শুক্রবার দুপুরে নিজ নির্বাচনী এলাকা আখাউড়া পৌরশহরের দেবগ্রাম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মোবাইল থেরাপি ভ্যানের কার্যক্রম উদ্বোধন ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন,রাষ্ট্রপতি গঠিত সার্চ কমিটি সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ ছিল। রাজনৈতিক দলগুলো রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ করা নামগুলো থেকে পাঁচজনকে নেয়া হয়েছে। সার্চ কমিটিকে আমরা পাঁচটি নাম দিয়েছিলাম। বিএনপিও দিয়েছিল। সেখান থেকে বিএনপির একজনকে নেয়া হয়েছে। আওয়ামী লীগেরও একজনকে নেয়া হয়েছে। অন্যান্য দলের দেয়া নাম হতেও নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘মহামান্য রাষ্ট্রপতি কেএম নুরুল হুদাকে বেছে নিলেন। এখানে বৈষম্য কোথায়?’

নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক সম্পৃক্ততাসহ বিস্তর অভিযোগ এনেছে বিএনপি। একইসঙ্গে এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব নয় মনে করে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে সরে যেতে বলে বিএনপি।

মন্ত্রী বলেন, ‘নতুন নির্বাচন কমিশনের প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে, নতুন নির্বাচন কমিশনের অধীনেই ২০১৯ সালে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ আবারো ক্ষমতায় আসবে।’

এ সময় সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক জিয়ার সমালোচনা করে মন্ত্রী বলেন, বিএনপির আমলে মা-ছেলে মিলে বাংলাদেশকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্রে পরিণত করেছিল। যেভাবে পারে সেভাবে সম্পদ লুটতরাজ করেছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করে নেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল।

আনিসুল হক বলেন, তারেকের বাবার একটি ভাঙা স্যুটকেস আর ছেঁড়া ব্যাগ ছিল। বিদেশে থাকা-খাওয়া এবং খরচ বাবদ অনেক ডলার লাগে। ৮ বছর যাবৎ সাহেব (তারেক জিয়া) বিদেশে থাকছেন। এতো টাকা তিনি পাচ্ছেন কোথায়?

মার্কিন প্রেসিডেন্টের সমালোচনা করে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, পৃথিবীতে একজন রাষ্ট্রপতি এসেছেন ট্রাম্প। তিনি ৭টি দেশের মুসলমানদের সেদেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা করেছেন। এতে করে কী ধরনের পরিণতি হতে পারে তা তিনি জানেন না। তদের নাচ একদিন ঠিকই বন্ধ হবে। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ প্রমাণে তারা ব্যর্থ হবে।

অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী ৫০ জন প্রতিবন্ধীর মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করেন। পরে তিনি পৌরশহরের দেবগ্রামের ৬১ পরিবারের মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগেরও উদ্বোধন করেন।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামরুন নাহার খানমের সভাপতিত্বে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক ছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার প্রামাণিক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক ড.রেজুয়ানুর রহমান, আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শামছুজ্জামান, আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক অধ্যাপক জয়নাল আবেদিন, যুগ্ম আহ্বায়ক ও জেলা পরিষদ সদস্য আবুল কাশেম ভূঁইয়া, সেলিম ভূঁইয়া প্রমুখ।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম