সংবাদ শিরোনাম

 

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি শরীফুল আলমসহ ৮১ নেতাকর্মী জামিন নিয়ে কারাগার থেকে ছাড়া পেয়েছেন। গত ৬ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ তাঁদের জামিন মঞ্জুর করে মুক্তির নির্দেশ দেন। হাইকোর্টের নির্দেশ পৌঁছার পর আজ শুক্রবার সকাল ৯টায় শরীফুল আলমসহ ৮১ জন নেতাকর্মী কিশোরগঞ্জ কারাগার থেকে বেরিয়ে আসেন।
এ সময় জেলগেটে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী ফুল দিয়ে তাঁদের বরণ করেন। শরীফুল আলম উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে জেল জুলুমের ও অত্যাচারের প্রতিবাদ জানান৷
এদিন শরীফুল আলম ছাড়া জামিনে মুক্ত হওয়া অন্য নেতাদের মধ্যে রয়েছেন পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহাদৎ হোসেন শাহ আলম, পৌর কাউন্সিলর ও উপজেলা যুবদল সভাপতি আজহার উদ্দিন লিটনসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন ও ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।
কিশোরগঞ্জ জেলার নবগঠিত কমিটিতে মো. শরীফুল আলম সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় গত ১৩ ডিসেম্বর ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের কুলিয়ারচরের দ্বাড়িয়াকান্দি ও আগরপুরে সংবর্ধনা সভার আয়োজন করে স্থানীয় বিএনপি। ওই অনুষ্ঠান উপলক্ষে মঞ্চ তৈরিসহ আনুষ্ঠানিক সাজসজ্জা তৈরি করেন নেতাকর্মীরা। কিন্তু রাতের আঁধারে দুর্বৃত্তরা সেগুলো ভেঙে গুঁড়িয়ে দিলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে তা আওয়ামী লীগ-বিএনপি ও পুলিশ-ত্রিমুখী ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় রূপ নেয়।
এ ঘটনায় কুলিয়ারচর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল হাশেম ও এহসানুল হক বাদী হয়ে মো. শরীফুল আলমসহ বিএনপির ৪২ নেতাকর্মীর নামে বিশেষ ক্ষমতা আইনে দুটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় কিশোরগঞ্জ আদালতে হাজিরা দিতে গেলে বিচারক তাঁদের জামিন আবেদন বাতিল করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম