সংবাদ শিরোনাম

 

ক্রীড়া ডেস্ক : বাংলাদেশ-ভারত টেস্টের তৃতীয় দিনে সফরকারী বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করছে। ফলোঅনে এড়ানোর কঠিন লড়াইয়ে তেমন একটা সাফল্য পাচ্ছে না বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনে মাঠে নেমেই তামিম ইকবালের ও মুমিনুল হকের উইকেট হারােয় বাংলাদেশ। এরপর মাহমুদউল্লাহও প্যাভিলিয়নের পথ ধরলে ব্যাটিং বিপর্যিই দেখা দিয়েছে। এখন উইকেটে রয়েছেন বাংলাদেশের অন্যতম দুই ব্যাটসম্যান সাকিব ও মুশফিক।

এ প্রতিবেদনটি লেখা অব্দি বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১০৯ রান।

তৃতীয় দিনের শুরুতেই মাঠে নেমে দল তামিম ইকবালের উইকেটটি হারায়। ১ উইকেটে ৪১ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করা তামিম-মুমিনুলরা মাঠে নামেন। ভারতের ৬৮৭ রানের জবাবে ম্যাচটি অন্তত বাঁচাতে হলে দুই দিন ব্যাট করতে হবে টাইগারদের। তবে দিনের শুরুতেই নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান তামিমের উইকেট হারিয়ে মোটেও ভালো ইঙ্গিত দিলো না টাইগাররা।

এদিন তৃতীয় ওভারে সাজঘরে ফিরে গিয়েছেন তামিম। ১৭তম ওভারে ভুবনেশ্বর কুমারের করা চতুর্থ ডেলিভারিতে দ্রুত দুই রান নিতে গিয়ে রান আউটের শিকার হয়েছেন তামিম। আউট হওয়ার আগে তার ব্যক্তিগত সংগ্রহ ৩টি চারের মারে ৫৩ বলে ২৫ রান। তামিম ফিরে যাওয়ার পর মুমিনুলের সঙ্গে উইকেটে যোগ দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

মাহমুদউল্লাহ ও মুমিনুল জুটি দলে ২০ রান যোগ করেন। এরপরই মুমিনুল এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়ে ফিরে যান সাজঘরে। যাওয়ার আগে তিনি স্কোরবোর্ডে জমা করেন মাত্র ১২ রান।

পরপর উইকেট হারিয়ে একটু চাপের মুখেই পড়েছিল দল। তবে দলকে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এ দুজনের ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের দলীয় স্কোর ১০০ পার করে। তবে দলীয় শতক করেই সাজঘরে ফিরেছেন মাহমুদউল্লাহ। তিনি ৪টি চারের মারে ২৮ রান করেন।

এর আগে ৬ উইকেট হারিয়ে ৬৮৭ রান তুলে প্রথম ইনিংস ডিক্লেয়ার করেছে স্বাগতিক ভারত। জবাবে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ওপেনার সৌম্য সরকারকে হারিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে বাংলাদেশ। দিন শেষে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে জমা হয়েছিল ১ উইকেটে ৪১ রান।

শুক্রবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ৩ উইকেটে ৩৫৬ রানের সংগ্রহ নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করেছিল বিরাট কোহলির দল। উইকেটে ছিলেন অধিনায়ক কোহলি (১১১ রান) ও অজিঙ্ক রাহানে (৪৫ রান)।

এদিন রাহানে ব্যক্তিগত ৮২ রানে আউট হন। অন্যদিকে, টানা চতুর্থ টেস্টে ডাবলসেঞ্চুরি করার রেকর্ড গড়ে কোহলি আউট হন ব্যক্তিগত ২০৪ রানে। দিনের শেষ দিকে টেস্ট ক্যারিয়ারে নিজের দ্বিতীয় সেঞ্চুরির দেখা পান ভারতের তরুণ ব্যাটসম্যান ঋদ্ধিমান সাহা। ব্যক্তিগত ১০৬ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। অন্যদিকে, ব্যক্তিগত ৬০ রানে অপরাজিত থাকেন স্পিন অলরাউন্ডার রবিন্দ্র জাদেজা। সব মিলিয়ে ৬ উইকেটে ৬৮৭ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে প্রথম ইনিংস ডিক্লেয়ার করে স্বাগতিকরা।

এই ইনিংসে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ৩টি উইকেটে নিয়েছেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। এ ছাড়া স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ ২টি ও পেসার তাসকিন আহমেদ একটি উইকেট নিয়েছেন।

এর আগে প্রথম দিনে (বৃহস্পতিবার) টস জিতে ব্যাটিং বেছে নিয়েছিল ভারত। ওপেনার মুরালি বিজয় ও বিরাট কোহলির সেঞ্চুরিতে প্রথম দিন শেষে বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিয়েছিল স্বাগতিকরা। টেস্টের দ্বিতীয় দিনে এর প্রতিফলনও দেখা গেছে।

তবে প্রথম ইনিংসে ভারতের এমন বড় সংগ্রহের পথে বাংলাদেশের দুর্বল ফিল্ডিংও অবদান রেখেছে। প্রথমদিনের মতো দ্বিতীয় দিনেও বাংলাদেশের ফিল্ডাররা সুযোগ নষ্ট করেছেন। এদিন ৪ রানে জীবন পান ঋদ্ধিমান সাহা। তাইজুল ইসলামের বল এগিয়ে খেলতে গিয়ে ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি তিনি। স্টাম্পিংয়ের সহজ সুযোগ হাত ছাড়া করেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। প্রথম প্রচেষ্টায় স্টাম্পেই লাগাতে পারেননি মুশফিকুর রহিম, পরের চেষ্টায় বেল ফেললেও, ততক্ষণে নিরাপদে ফিরে আসেন ঋদ্ধিমান। এ ছাড়া কামরুল ইসলাম রাব্বির বলে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন রাহানে। কিন্তু সাব্বির রহমান সেটি ধরতে পারেননি। তখন ৬২ রানে ব্যাট করছিলেন রাহানে।

বৃহস্পতিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) হাদ্রাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে শুরু হয়েছে সিরিজির একমাত্র টেস্ট ম্যাচ। টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার ১৭ বছর পর প্রথমবারের মতো ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম