সংবাদ শিরোনাম

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, মুসলিমপ্রধান সাত দেশের নাগরিকদের উপর যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা ইস্যুতে শেষ পর্যন্ত তার প্রশাসনের জয় হবেই।

আগের নির্বাহী আদেশ আদালত ঠেকিয়ে দেয়ায় এখন নতুন আদেশ নিয়েও ভাবছেন তিনি।

ট্রাম্প প্রশাসন যে নির্বাহী আদেশ জারি করেছিল তাতে মুসলিমপ্রধান সাতটি দেশের নাগরিক ও শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের পথ রুদ্ধ হয়ে যায়। তবে সপ্তাহখানেক আগে ওই নির্বাহী আদেশ আটকে দেয় সিয়াটলের একটি আদালত।

এখন ট্রাম্পের সামনে খোলা রয়েছে সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার পথ। তবে শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, সে বিষয়টিকে খুব একটা গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে না।

শুক্রবার ফ্লোরিডা যাওয়ার সময় ট্রাম্প সাংবাদিকদের বলেন, এ যুদ্ধে আমরা জিতবই। দুর্ভাগ্যজনক বিষয় হলো এতে সময় লাগবে। তবে এ যুদ্ধে আমরা জিতবই। তবে আমাদের হাতে আরো অনেক সুযোগ আছে, যেমন- আমার নতুন আরেকটা আদেশ জারি করতে পারি।

নতুন আদেশ কী হতে পারে সে বিষয়টা পরিষ্কার নয়। তবে ট্রাম্প বলেছেন, এতে খুব সামান্যই পরিবর্তন আসবে।

বৃহস্পতিবার আদালতের জারি করা রুলে বলা হয়ে, এ নিষেধাজ্ঞার পেছনে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা রয়েছে তা প্রমাণে সরকার ব্যর্থ হয়েছে। তবে শুরু থেকেই ট্রাম্প বলে আসছেন, সন্ত্রাসী হামলার হাত থেকে যুক্তরাষ্ট্রেকে বাঁচাতে এ আদেশ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

জাপানি প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প আশ্বাস দেন, আগামী সপ্তাহ নাগাদ যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্য নতুন কর্মপরিকল্পনা আনবেন তিনি।

ট্রাম্প সংবাদ সম্মেলনে এসব বললেও, ট্রাম্পের নীতি মুসলিম বিদ্বেষ থেকে আসছে কি না ভার্জিনিয়ার আদালতে তা নিয়ে তর্ক-বিতর্ক হয়েছে। ভার্জিনিয়ার এ মামলাটিকে বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে।

ভার্জিনিয়া অ্যাটর্নি জেনারেল মার্ক হেরিংয়ের মুখপাত্র বলেছেন, নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে যুক্তিতে এখানেই সবচেয়ে সুক্ষ পর্যালোচনা রয়েছে।

যে বিচারক এই মামলার শুনানি করছেন, ১৯৯৩ সালে বিল ক্লিনটনের সময়ে নিয়োগ পেয়েছিলেন তিনি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম