সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : মাত্র ৩৫ ঘণ্টার ব্যবধানে দেশের সড়কে প্রাণ গেল ৩৬ জনের। অাজ ভয়াবহ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে সকাল সাড়ে ৮টায় নরসিংদীতে। এ ঘটনায় ১১ জন নিহত হয়েছেন। অার শুক্রবার রাতে ফরিদপুরে ঘটেছে আরেক মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। ফরিদপুরের নগরকান্দায় গ্যাস সিলিন্ডারবাহী কাভার্ড ভ্যানের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষের পর আগুন ধরে যাওয়ায় ১৩ জন দগ্ধ হয়ে মারা যান। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টা থেকে রোববার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত নরসিংদী, ফরিদপুর, গাজীপুর, নাটোর, মাগুরায় মোট ছয়টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে গাজীপুরেই দুটি দুর্ঘটনা ঘটে। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৭২ জন। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে এই তথ্য উঠে এসেছে।

নরসিংদী
নরসিংদীর বেলাবো উপজেলার দড়িয়াকান্দিতে বাস-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে ১১ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ২ শিশু ও ৪ নারী রয়েছেন বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৪ জন।

রোববার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ৩ জনকে ভৈরব হাসপাতালে ও একজনকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বেলাবো থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ফরিদপুর
ফরিদপুরের নগরকান্দা থানার গজারিয়া এলাকায় ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে বাস ও পিকআপ ভ্যানের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩ জন হয়েছে। এছাড়া আরও অন্তত ১৫ আহত হয়েছেন। শুক্রবার দিবাত রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাত সাড়ে ১১টার দিকে ফরিদপুরের নগরকান্দা থানার গজারিয়া এলাকায় ঢাকাগামী একটি বাস ও খুলনাগামী একটি পিকআপ ভ্যানের মধ্যে সংঘর্ষ হয় এবং সিলিন্ডার বিস্ফোরণে বাসে আগুন ধরে যায়। এতে এখন পর্যন্ত ১৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহত সবাই অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছেন। আহতদের মধ্যেও বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

গাজীপুর
গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুরে ট্রাকচাপায় ইজিবাইক আরোহী অবসরপ্রাপ্ত এক সৈনিকসহ তিনজন নিহত ও অপর ছয়জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে গাজীপুর জেলা সদরের পশ্চিম নয়নপুর এলাকার আফাজ উদ্দিনের ছেলে এবং ডিজিএফআই হেডকোয়ার্টারের প্রশাসন ব্যুরোর সিভিল সেকশনের উচ্চমান সহকারি আবু হানিফ আজাদ (৩৪) ও সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সৈনিক আনোয়ার (৪২) হোসেনের নাম-পরিচয় জানা গেছে।

এছাড়া গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের চক্রবর্তী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বাস ও ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে দুইজন নিহত এবং ২৫ জন আহত হয়েছেন। শনিবার রাত ৭টার দিকে নবীনগর-কালিয়াকৈর সড়কে এই ঘটনা ঘটে।

নাটোর
নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার আইড়মারি সেতু এলাকায় বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কে শনিবার ভোর পাঁচটার দিকে একটি ট্রাক অপর একটি ট্রাককে ধাক্কা দিলে তিনজন নিহত ও সাতজন আহত হন। নিহতদের মধ্যে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার হারোয়া গ্রামের আবদুল হাকিমের ছেলে শহীদ হোসেন (৪০) ও টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার চর তেঁতুলিয়া গ্রামের মৃত কোরবান আলীর ছেলে ফুলচাঁদ আলীর (৩৮) পরিচয় জানা গেছে।

মাগুরা
যশোর-মাগুরা সড়কের শেখপাড়া নামক স্থানে শনিবার ভোররাতে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজনসহ চার ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। আহত হন আরও ১০ জন। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ও দেবগ্রাম ইউনিয়নের ১৩ জন একটি মাইক্রোবাসে যশোরের বেনাপোল যাচ্ছিলেন। পথে সেটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। আহত ব্যক্তিদের ফরিদপুর, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং বিভিন্ন চিকিৎসাকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন দেবগ্রাম ইউনিয়নের তেনাপচা গ্রামের বাসিন্দা ব্যবসায়ী নূর মোহাম্মদ মোল্যার স্ত্রী খোদেজা বেগম (৪৫), নূর মোহাম্মদের ভাই সালাম মোল্যার স্ত্রী মজিরন বেগম (৪০) ও সালাম মোল্যার ছেলে আলামিন (৯) এবং দৌলতদিয়া ইউনিয়নের উত্তর দৌলতদিয়া ওমর আলী মোল্যা পাড়ার মৃত আজগর আলী সরদারের স্ত্রী ফুলজান বিবি (৭০)।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম