সংবাদ শিরোনাম

 

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম :  প্রতিদিনের মত আজ মঙ্গলবার প্রভাতেও সূর্য আলোর নাচন তুলে চোখ মেলবে। তবে,দখিনা হাওয়া কাল হৃদয়ে বুনে দেবে ভ্রমর গুঞ্জন। অমরাবতীর তীর ছুঁয়ে স্বর্ণরেণু পালকে মেখে ভেসে আসবে বর্ণিল প্রজাপতি ও ভ্রমরের ঝাঁক। কারণ আগামীকাল দিবস ও রজনী ভালবাসার। বিশ্ব ভালবাসা দিবস বা ভ্যালেন্টাইন ডে।
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভাষায় ‘আমার জীবনে তুমি বাঁচো ওগো বাঁচো/তোমার কামনা আমার চিত্ত দিয়ে যাঁচো…’ অথবা ‘তোমরা যে বল ভালবাসা ভালবাসা/সখী ভালবাসা কারে কয়…’। কবির বাঁচা মরার এবং চিত্র দিয়ে ভালবাসা বোঝাবোঝির চিরন্তন বোধ কাল হয়তো একটু বেশিই অনুভূত হবে গোলাপ বিনিময় ও আবেগের ভাষায়। বসন্ত বাতাসে হৃদয়ের মিথস্ক্রিয়ায় সারা বিশ্বের প্রেমপিয়াসী যুগলরা    বছরের এ দিনটিকেই বেছে নেয় মনের গহিনের কথকতার কলি ফোটাতে। চন্ডিদাসের অনাদিকালের সেই সুর-‘দুহঁ করে দুহঁ কাঁদে বিচ্ছেদ ভাবিয়া/আধতিল না দেখিলে যায় যে মরিয়া/সখী কেমনে বাধিঁব হিয়া…’। এ আবেদনও কাল বাজবে কারও কারও হৃদয়ে। প্রেমদেব কিউপিড এদিন প্রেমশর বাগিয়ে হৃদয় কন্দরে ঘুরে বেড়াবেন। অনুরাগে পাগল প্রেমিক-প্রেমিকারা পরাণ তাড়িত হয়ে বিদ্ধ হবে দেবতার বাঁকা ইশারায়। তাদের মনে লাগবে দোলা, ভালবাসার রঙে রাঙাবে হৃদয়। ভালবাসা উৎসবে মুখর হবে জনপদ। সারা বিশ্বের মতোই বাংলাদেশেও কাল উদযাপিত হবে দিবসটি। এ ছাড়া বিভিন্ন সংগঠন দিবসটি পালনে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। ডিজিটাল যুগের তরুণ-তরুণীরাই এ দিবস ঘিরে ব্যস্ত হয়ে ওঠবে। প্রযুক্তির কল্যাণে হাইটেক ডিজিটালের যুগে মুঠোফোনের ক্ষুদ্র বার্তা, ই-মেইল অথবা ফেসবুকে পুঞ্জ পুঞ্জ প্রেমকথার কিশলয় পল্লবিত হয়ে উঠবে আজ রাত ১২টার পর থেকেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে রবীন্দ্র সরোবর পর্যন্ত রাজধানী ঢাকার আনাচে কানাচে এমনকি সারাদেশের পার্ক  ও বিনোদন কেন্দ্রগুলো সরব হবে প্রেমিক-প্রেমিকাদের পদচারণায়। হয়তো কবির ভাষায় একে অন্যকে বলবে- ‘তোমাকে ভালবাসি। ভালবেসে সখী নিভৃত যতনে আমার নামটি লিখো তোমার মনের মন্দিরে…’। পশ্চিমা দুনিয়ায় ভ্যালেন্টাইন ডে বা প্রেম উৎসব তারুণ্যের মাঝে এক অদেখা ভুবনের উত্তেজনা ছড়ায়। এদিন চকোলেট, পার্ফিউম, গ্রিটিংস কার্ড, ই-মেইল, মোবাইলের এসএমএস প্রেমবার্তা, হিরার আংটি, প্রিয় পোশাক, খেলনা মার্জার, বইয়ের ভেতরে রাখা গোলাপের ইশারা বিনিময় হয়ে উঠবে তরুণ-তরুণীদের প্রথম অনুসঙ্গ। হয়তো আরও থাকবে নীল খামে হালকা প্রেমের আকুতি, একটি গোলাপ ফুল, ছোট্ট কোন উপহার, আর ছোট্ট একটি চিরকুট। তাতে দু’ছত্র গদ্য বা পদ্যে প্রেমের ঊর্মি- ‘ইউ স্টেপ ইনটু মাই হার্ট, টার্নিং ইট ফ্রম স্টোন…’ অথবা ‘তুমি আমার সবটুকু গান/ ঝড়ের পরে একটুু চুমু/ তাতে আছে সবটুকু প্রাণ…’।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম