সংবাদ শিরোনাম

 

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় মা ও শিশুসন্তানকে হত্যা মামলার মূল আসামি নজরুলসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মতিউর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার ভোরে ফেনী থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন, উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের মো. নজরুল ইসলাম (২৫), তার বাবা সোহরাব উদ্দিন (৫০) ও মা মদিনা খাতুন (৪৫)। গ্রেপ্তারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানান তদন্ত কর্মকর্তা (এসআই) মো. মতিউর রহমান।

প্রসঙ্গত, উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের পাবদা গ্রামের নজরুল ইসলাম একই গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর মেয়ে রহিমা খাতুনের বিয়ে হয়। রহিমা খাতুন বুদ্ধি ও বাক প্রতিবন্ধী ছিলেন। তাদের সংসারে আমিরুল ইসলাম নামে দেড় মাস বয়সী ছেলেসন্তান ছিল। গত ১৬ জানুয়ারি থেকে রহিমা ও তার সন্তান আমিরুল ইসলাম নিখোঁজ থাকাবস্থায় ২১ জানুয়ারি উপজেলার মিরারটেক বিলভরা গুদি বিল থেকে রহিমা খাতুনের গলিত মরদেহ ও এর ১০ দিন পর একই স্থান থেকে শিশু সন্তান আমিরুলেরও মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

ঘটনায় রহিমার বড় ভাই আবদুল আউয়াল বাদী হয়ে ভগ্নিপতি নজরুল ইসলাম (২৫), দেবর দ্বীন ইসলাম (১৮), শ্বশুর সোহরাব উদ্দিন (৫০) ও শাশুড়ি মদিনা খাতুনকে (৪৫) অভিযুক্ত করে হত্যা ও গুমের অভিযোগে মামলা করেন। ওই মামলায় আগেই গ্রেপ্তার দেবর দ্বীন ইসলাম বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সামসুদ্দীন আসামি গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম