সংবাদ শিরোনাম

 

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : আবারও আলোচনায় ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার কলসিন্দুরের নারী ফুটবলাররা। সিঙ্গাপুর থেকে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা শেষে দেশে ফিরে ঢাকা থেকে সোমবার দুপুরে জামালপুরগামী অগ্নিবীণা ট্রেনে চেপে ময়মনসিংহে যায় অনূর্ধ্ব-১৬ নারী ফুটবলের তিন তারকা মার্জিয়া, নাজমা ও শামছুন নাহার।

সকাল পৌনে ১০টায় ট্রেনে চড়ে দুপুর সোয়া ১টায় ময়মনসিংহ জংশন রেলস্টেশনে নামে ওই তিন নারী ফুটবলার। আগে থেকেই ফোন করা ছিল ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. বোরহান উদ্দিনকে। বোরহান উদ্দিন পৌঁছার আগেই ট্রেন পৌঁছায় স্টেশনে। তারপর অপেক্ষার পালা। আবার ফোন কল, তারপর আগমন বোরহান উদ্দিনের।

বিদেশফেরত নারী ফুটবলারদের বোরহান উদ্দিন ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় করে স্টেশন থেকে নিয়ে যান পাটগুদাম বাসস্ট্যান্ডে। সেখানে ভাড়ায়চালিত সিএনজিচালিত অটোরিকশায় অপর এক যাত্রীর সঙ্গে গাদাগাদি করে বসিয়ে দেওয়া হয় কলসিন্দুরের ফুটবলকন্যাদের।

বিষয়টি নিয়ে রাতে ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম অনলাইনের সঙ্গে কথা হয় কলসিন্দুরের নারী ফুটবল তারকা মার্জিয়া আকতারের সঙ্গে। মার্জিয়া জানায়, বিদেশে তাদের সঙ্গে ছিলেন ‘শশী ম্যাডাম।’ বিদেশ থেকে দেশে আসার পর বাড়িতে ভালোভাবেই পৌঁছায় তারা। কোনো অসুবিধা হয়নি।

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. বোরহান উদ্দিন বলেন, মেয়েরা এসি বাস বা গাড়িতে বমি করে পথেই অসুস্থ হয়ে পড়ে। তারা ট্রেন বা খোলামেলা বাহনে চলাচলে আরামদায়ক মনে করে। তাদের ইচ্ছামতোই তাদের চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। খরচ দিয়েছে বাফুফে। এতে দোষের কিছু নেই।
মেয়েদের ‘শশী ম্যাডামকে’ ফোন করা হলে তিনি তা রিসিভ করেননি। খুদেবার্তা পাঠিয়ে (এসএমএম) কল করা হলেও উত্তর দেননি।

এর আগে গত বছরের ৬ সেপ্টেম্বর লোকাল বাসে করে বাড়ি ফেরার সময় উত্ত্যক্তের শিকার হয় কলসিন্দুরের মেয়েরা। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ বাছাইপর্বে গ্রুপ পর্যায়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরদিন এই ঘটনা ঘটে।

তখন ঈদের ছুটি কাটাতে রাজধানীর মহাখালী বাসস্ট্যান্ড থেকে একটি লোকাল বাসে করে বাড়ির দিকে রওনা দেয় দলে থাকা কলসিন্দুরের মেয়েরা। তাদের সঙ্গে ছিল না বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) কেউ বা কোনো অভিভাবক।

বাসে অশ্লীল কটূক্তির শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে মার্জিয়া-নাজমা-তাসলিমারা, যা নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে সর্বস্তরে। ক্ষোভ প্রকাশ করেন তাদের অভিভাবকরাও।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম