সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহান একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে জঙ্গিবাদমুক্ত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ের মধ্যদিয়ে আজ মঙ্গলবার সারাদেশে মহান ভাষা শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত ।
ভাষা শহীদদের প্রতি যথাযোগ্য মর্যাদা, বিনম্র ভালবাসা ও শহীদ মিনারের বেদীতে পুষ্পাঞ্জলি অর্পণের মাধ্যমে জাতি তাদের কৃতি-সন্তানদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে।
দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ইউনিয়ন ও গ্রামে-গঞ্জে ভাষা শহীদদের স¥রণে নির্মিত শহীদ মিনারগুলোতে সোমবার মধ্যরাত অর্থাৎ  মঙ্গলবার রাতের প্রথম প্রহরে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে মহান ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শুরু হয়। সারাদেশের শহীদ মিনারগুলোতে রাত ১২ট ১মিনিট থেকেই বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে জনতার ঢল নামে। রাতভর ফুলে-ফুলে ভরে যায় এসব শহীদ মিনার।
বাসসের স্টাফ রিপোর্টার, সংবাদদাতা ও প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যমতে, মধ্যরাত থেকে আজ দিনভর শহীদদের স্মৃতির প্রতি পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন পাশপাশি কবিতা পাঠের আসর, আলোচনা সভা,আলোকচিত্র প্রদর্শনী, প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, সুন্দর হস্তাক্ষর ও রচনা প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন অনষ্ঠানের মধ্যদিয়ে এ দিবস পালিত হচ্ছে।
এসব অনুষ্ঠান ছাড়াও মসজিদ, মন্দির, গির্জা, প্যাগোডাসহ বিভিন্ন ধর্মীয় উপাসনালয়ে ভাষা শহীদদের রুহের প্রতি শান্তি কামনায় বিশেষ দোয়া, মুনাজাত এবং প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়।
বাসস’র বরিশাল সংবাদদাতা জানান, মহান ভাষা শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে একুশের প্রথম প্রহর থেকেই বরিশাল নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুলের তোড়া অর্পণের মাধ্যমে সর্বস্তরের মানুষ ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
একুশের প্রথম প্রহরে (রাত ১২টা ১ মিনিটে) শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানান বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস, বরিশাল-৫ আসনের সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ ও বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য শেখ টিপু সুলতান।
এরপর একে একে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন, সিটি করপোরেশনের মেয়র আহসান হাবিব কামাল, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মইদুল ইসলাম, ডিআইজি শেখ মোহাম্মদ মারুফ হাসান, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার এসএম রুহুল আমীন, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার নুরুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান, পুলিশ সুপার এসএম আক্তারুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, বিএম কলেজ, সরকারি মহিলা কলেজ, শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেস ক্লাব, বরিশাল রিপোর্টাস ইউনিটি, আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ন, এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন।
এদিকে আজ সকাল ৭টা থেকে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে আসে। সকাল ৯টায় জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দরা শহীদ বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর সকাল সাড়ে ৯টায় শহীদের শ্রদ্ধা জানাতে আসেন জেলা ও মহানগর বিএনপি। এ সময় শিশুরাও শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানান।
মাগুরা সংবাদদাতা জানায়, একুশের প্রথম প্রহরে মাগুরা সরকারি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ প্রাঙ্গনস্থ শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
রাত ১২ টা ১ মিনিটে প্রথমে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মাগুরার জেলা প্রশাসক মাহবুবর রহমান। এরপর শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ নিবেদন করেন পুলিশ সুপার মুনিবুর রহমান, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সাহাজ উদ্দিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পঙ্কজ কুন্ডু।
এ ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মাগুরা পৌরসভা,স্বাস্থ্য বিভাগ, এলজিইডি সদর উপজেলা পরিষদ, আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠন, প্রেস ক্লাব, সরকারি মহিলা কলেজ, আদর্শ কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
পরে সর্বস্তরের মানুষ পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান জানান
বাসস’র মেহেরপুর সংবাদদাতা জানায়,একুশের প্রথম প্রহরে ফুলেল শ্রদ্ধায় ভাষা সৈনিকদের স্মরণ করলেন মেহেরপুরের প্রশাসনসহ সর্বস্তরের মানুষ। এ উপলক্ষে রাত ১১টা থেকেই শহরের প্রাণ কেন্দ্রে শহীদ সামসুজ্জোহা পার্কে হাজারো মানুষের ঢল নামে।
প্রথম প্রহরে (রাত ১২ টা ১ মিনিটে) মেহেরপুর শহীদ সামুসজ্জোহা পার্কে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন, জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, ভাষা সংগ্রামী ইসমাইল হোসেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ গোলাম রসুল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বশির আহমেদ, মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতু এবং শহর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মেহেরপুর সরকারি কলেজ, মেরেহপুর সরকারি মহিলা কলেজ, পৌর কলেজ, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী, পাবলিক লাইব্রেরি, সাহিত্য পরিষদ, মেহেরপুর থিয়েটার, ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতি, প্রাথমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতি, শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদ, মেহেরপুর ব্যবসায়ী সমিতি, জাগো বাঙালি, অদম্য শক্তি বাড়িবাকা, রেড ক্রিসেন্টে, ইমারত নির্মাণকারী, অরণী থিয়েটার, অবসর, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী, প্রাণী সম্পদ বিভাগ, ইয়াং বাংলা ফিউচার লিডার্স, প্রজন্ম মুজিবনগর, কৃষিবিদ ইন্সিটিউট, শ্রমিক লীগ, মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি, বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমি, সুজন, নজরুল একাডেমি, শিল্পকলা একাডেমি, সড়ক বিভাগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, আইনজীবী সমিতি, রাসেল স্মৃতি সংঘ, বাস্তুহারালীগ, কৃষক লীগ, আনছার ও ভিডিপি, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন, গণপূর্ত বিভাগ, জাতীয় মহিলা সংস্থা, জেলা পরিবেশক সমিতি, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থা, শিশু, তরুণ, যুবক, নারী-পুরুষ শহীদ মিনারের সামনে গিয়ে দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
কারো হাতে প্ল্যাকার্ড, কারো হাতে ব্যানার, মাথায় স্টিকার, হাতে ফুল আবার কেউবা শহীদ মিনারে হাজির হয়েছিলেন জাতীয় পতাকা হাতে। নিজেদের মধ্যে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন এক কাতারে।
এছাড়া কুষ্টিয়া, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, বগুডা, চুয়াডাঙ্গা, দিনাজপুর, লারমনিরহাট, গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল প্রভৃতি জেলায় নানা অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে মহান ভাষা শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হচ্ছে বলে বাসস’র সংবাদদাতারা জানান।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম