সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকার হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশনে আটকে যাওয়ার এক দিন পরেই লন্ডনে গেলেন শফিক রেহমান।

শুক্রবার (২৪ ফেব্রুংয়ারি) বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টায় টার্কিশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে শফিক রেহমান লন্ডনের উদ্দেশে রওনা হন। ইমিগ্রেশন পুলিশের সদস্যরা আজ তাকে সহযোগিতা করেছেন। চিকিৎসাধীন স্ত্রী তালেয়া রেহমানের পাশে থাকতে তিনি লন্ডনে গেছেন।

শায়রুল কবির আরো বলেন, তালেয়া রেহমান খুবই অসুস্থ। গত ২২ জানুয়ারি থেকে তিনি লন্ডনে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাকে দেখতে এবং নিজের চিকিৎসার জন‌্যই লন্ডন গেছেন শফিক রেহমান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে ‘অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্র’ মামলায় জামিনে আছেন শফিক রেহমান। বৃহস্পতিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) তার লন্ডনে যাওয়ার কথা থাকলেও সকালে বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন পুলিশ আটকে দেয়।

শায়রুল কবির বৃহস্পতিবার জানিয়েছিলেন, শফিক রেহমান আদালতের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখালেও ইমিগ্রেশন পুলিশ তা আমলে নেয়নি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে জয়কে যুক্তরাষ্ট্রে ‘অপহরণের লক্ষ্যে’ তার সম্পর্কে তথ্য পেতে এফবিআইয়ের এক এজেন্টকে ঘুষ দেওয়ায় দেশটির আদালতে গত বছর প্রবাসী এক বিএনপি নেতার ছেলের কারাদণ্ড হয়।

সেই রায়কে কেন্দ্র করে ঢাকায় করা এক মামলায় গতবছর ১৬ এপ্রিল যায়যায়দিন পত্রিকার সাবেক সম্পাদক শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়। পাঁচ মাস জেলে কাটানোর পর আপিল বিভাগের জামিনে গত ৬ সেপ্টেম্বর কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম