সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভূ-গর্ভস্থ পানির উপর নির্ভরতা কমিয়ে সুপেয় পানি নিশ্চিতে সারাদেশে ৩ হাজার পুকুর খনন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন। এজন্য ৩০০ কোটি টাকায় ব্যয় হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

সচিবালয়ে রবিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ডিটেইল্ড এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) রিভিউয়ে গঠিত মন্ত্রিসভা কমিটির দশম সভায় এ তথ্য জানান মন্ত্রী।

ড্যাপ বাস্তবায়নে পানির ব্যবহার ও জলাধার ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব দেওয়া হবে জানিয়ে মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘বর্তমানে ৮০ ভাগ পানি ভূ-গর্ভস্থ উৎস থেকে আর ২০ ভাগ ভূ-উপরিস্থ উৎস থেকে সরবরাহ করা হয়। এ কারণে পানির স্তর ক্রমশ নিচে চলে যাচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে পুরো দেশ এক সময় মরুভূমি হয়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘এসব বিবেচনায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি এখন থেকে ৮০ ভাগ পানি ভূ-উপরিস্থ উৎস হতে সরবরাহ করা হবে। এরপরও পানির যদি প্রয়োজন হয় তাহলে ২০ ভাগ ভূ-গর্ভস্থ উৎস থেকে সরবরাহ করা হবে।’

এজন্য মেগা-পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে জানিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘সরকার ইতোমধ্যে সারা দেশব্যাপী ৩ হাজার পুকুর খননে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করেছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা শহরের জনসংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে শহরও দ্রুত সম্প্রসারিত হচ্ছে। রাজউকের ডিটেইল্ড এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) বাস্তবায়িত হলে ঢাকা মহানগর অন্যতম বসবাসযোগ্য নগরীতে পরিণত হবে।’

ড্যাপের ভূমির শ্রেণি পরিবর্তন সংক্রান্ত আপত্তিগুলোও সংশ্লিষ্টদের দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়ে মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আধুনিক মানসম্পন্ন ও বসবাস উপযোগী হিসেবে ঢাকাকে গড়ে তুলতে খুব শিগগিরই ড্যাপ বাস্তবায়ন করা হবে।’

স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর সভাপতিত্বে সভায় পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাফর আহমেদ খান, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেক, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার, নৌ-পরিবহন সচিব অশোক মাধব রায়, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ইসতিয়াক আহমদসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম