সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : শ্রমিকদের পরিবহন ধর্মঘটের চাপে সড়ক দুর্ঘটনার শাস্তির আইন থেকে সরে না আসতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

মঙ্গলবার রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে খুলনার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সৈয়দ খায়রুল ইসলামের নেতৃত্বে বিভিন্ন দলের দুই শতাধিক নেতা-কর্মী জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন। এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার সময় সরকারের প্রতি উক্ত আহ্বান জানান প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘সড়ক দুর্ঘটনায় মানুষ মেরে ফেলা হচ্ছে। মৃত্যুর জন্য দায়ী চালককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়ায় জনগণকে জিম্মি করে শ্রমিকরা ধর্মঘট করছে। তারা অযৌক্তিক ধর্মঘট করে আইন বাতিলের জন্য সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টির চেষ্টা করছে। কিন্তু যত ধর্মঘটই করুক, চাপে নতি স্বীকার করা যাবে না। আইন থেকে সরে আসা যাবে না। তাহলে সড়কে মৃত্যুর মিছিল কমবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমার সময় আইন করেছিলাম, অবহেলার কারণে যদি কোনো চালক মানুষকে মেরে ফেলে তাহলে তার মৃত্যুদণ্ড হবে। কিন্তু সে আইনটা রাখতে পারেনি। এই সরকার আইন করেছে, যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে। রাখতে পারবে কি না, জানি না। ধর্মঘট শুরু হয়েছে কতদিন থাকবে তাও জানি না। আইন থেকে সরে গেলে প্রতিদিন মানুষ মারা যাবে।’

শ্রমিকদের অযৌক্তিক কর্মসূচি দমনের আহ্বান জানিয়ে এইচ এম এরশাদ বলেন, ‘চালকদের অবহেলায় প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ মরছে। কিন্তু অপকর্মের অনুশোচনা না করে পরিবহন সেক্টরের শ্রমিকরা কথায় কথায় ধর্মঘট করে জনগণকে উল্টো জিম্মি করে রেখেছে। তাদের আন্দোলনে ভীতু হলে চলবে না।’

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘দেশবাসী শান্তিতে নেই। তারা শান্তি চায়, নিরাপত্তা চায়। এজন্য জাতীয় পার্টিকে অবশ্যই ক্ষমতায় যেতে হবে।’

জাতীয় পার্টিতে যোগদানকারীদের উদ্দেশে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, ‘খুলনা একসময় অবহেলিত ছিল। কিন্তু আমরা ক্ষমতায় এসে সেটাকে সিটি করপোরেশন করেছি। খুলনায় বিশ্ববিদ্যালয়, মংলা পোর্ট, সাতক্ষীরা-খুলনা রোডসহ উন্নয়ন বলতে যা বোঝায় তা আমার শাসনামলেই হয়েছে।’

দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়ের সভাপতিত্বে যোগদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন দলের কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য আবুল কাসেম, এস এম ফয়সল চিশতি, অবসরপ্রাপ্ত মেজর খালেদ আখতার প্রমুখ।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম