সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘একটা রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন হচ্ছে জনগণ। জনগণের কাছে যে রাজনৈতিক দল জনপ্রিয়, সেটাই নিবন্ধের মাপকাঠি। তার পরে আইন থাকলেও আইনকে মান্য করতে হয়। কিন্তু সে আইন যদি কালো আইনে পরিণত হয়, কোনো ব্যক্তির ইচ্ছা পূরণের সহায়ক হয়, তাহলে সেই আইন মান্য না করাই বড় কাজ, বড় দায়িত্ব।’

‘নিবন্ধন হারানোর ভয়ে বিএনপি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসবে’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের-এর এমন বক্তব্যে প্রতিক্রিয়ায় শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে অবস্থিত বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘যদি শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হয়, রেজিস্ট্রেশন রক্ষা করার জন্য নির্বাচন করতে হয়, তাহলে সেই নির্বাচন প্রকৃত নির্বাচন হবে না। সেটা জোর করে তামাসার নির্বাচন, বাধ্য করার নির্বাচন হবে।’

‘এ নির্বাচনের জন্য তো বিএনপি লড়ায় করেনি। বিএনপি লড়াই করেছে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য। যেন ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা যেতে পারে। এটাই হচ্ছে আমাদের অবজেকটিভ। আওয়ামী লীগের নেতাদের বক্তব্য তাদের নিজেদের কথা।’ -বলেন তিনি।

নির্বাচন সুষ্ঠু হতে মাঠ সমতল হতে হবে দাবি করে রিজভী বলেন, ‘শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে নিরপেক্ষ, সচ্ছ্ব হবে না। মাঠ সমতল হবে না। নিরপেক্ষ অন্তর্বর্তীকালীন সরকার বলুন, আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারই বলুন, সেটা নিরপেক্ষ সরকার হতে হবে। তাহলেই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে।’

এর আগে লিখিত বক্তব্যে রিজভী বলেন, ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশনও রকিব উদ্দিনের রক্তচিহ্ন পথ ধরেই অগ্রসর হচ্ছে। দিন যত যাচ্ছে ততই বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দলীয় চেহারাটাও ফুটে উঠছে। রকিব উদ্দিন কমিশন নির্বাচনী ব্যবস্থাকে পুরোপুরি ধ্বংস করেছেন এবং তারা যে সমস্ত অনাচারমূলক পন্থা অবলম্বন করতেন ঠিক সেভাবেই বর্তমান কমিশনও নির্লজ্জের মতো সেটাই অনুসরণ করছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখনও সেই পূর্বের মতো বিএনপি মনোনীত প্রার্থীদেরকে মনোনয়নপত্র জমাদানে বাধাদান, প্রচারণায় হামলা, মাইক ও লিফলেট-পোস্টিার ছিঁড়ে ফেলা, বাড়ী-ঘর ভাংচুর, ভয়ভীতি প্রদর্শন, নির্বাচনী এজেন্ট যেন না হয় সে জন্য বিএনপি প্রার্থীর সমর্থকদের জীবননাশের হুমকি প্রদান করা হচ্ছে।’

আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে বিজয়ী করার লাইসেন্স নিয়েই বর্তমান সিইসি এগিয়ে যাচ্ছে -এমনটাই দেশবাসী মনে করছে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির এ নেতা।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম