সংবাদ শিরোনাম

 

এফ.এ.বিশাল ঈশ্বরগঞ্জ, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে এগারটি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় যত্রতত্র গড়ে উঠছে প্রায় ১০৩ টি  কিন্ডারগার্টেন। এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষাদান কর্মসূচীর নামে চলছে জমজমাট শিক্ষা ব্যবসা। সরেজমিনে পরিদর্শনে দেখা যায় বাসা ভাড়া নিয়ে অথবা টিন দিয়ে চালা তৈরি করে নাম সর্বস্ব বেতন দিয়ে শিক্ষক নিয়োগ করে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে এসব প্রতিষ্ঠান। বর্তমান প্রেক্ষাপটে কিন্ডাগার্টেন ব্যবস্থা অভিভাবকদের নিকট অপরিহার্য হয়ে পড়লেও এগুলোর মান নিয়েও রয়েছে দু:চিন্তা। এসব প্রতিষ্ঠানে এমন সব শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে কার্যক্রম চালানো হচ্ছে যাদের ন্যূনতম যোগ্যতা নেই শিক্ষক হওয়ার। একেতো স্বল্প বেতন তার ওপর শিক্ষকদের নিয়োগের আগে ৫ থেকে ১০জন শিক্ষার্থী ভর্তি করে দিতে হবে এমন শর্ত জুড়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। এদিকে স্বল্প বেতন দেয়ার ফলে শিক্ষকরা শ্রেণি কক্ষে পাঠদানের চেয়ে শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়ানোর উপর বেশি মনোযোগী হয়ে পড়েছে। আবার কোন কোন কিন্ডারগার্টেন বিভিন্ন বইয়ের প্রকাশকদের কাছ থেকে উৎকোচ নিয়ে মানহীন অধিক বই চাপিয়ে দিচ্ছে শিক্ষার্থীদের উপর। এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদের নেই কোন প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা তারপর সরকারি তদারক বিহীন থাকার ফলে কার্যক্রম চলছে কর্তৃপক্ষের ইচ্ছা মাফিক । কোন কোন প্রতিষ্ঠানে দেখা যায় আত্মীয় স্বজনরা মিলেই প্রতিষ্ঠান চালাচ্ছে। অথচ আদায় করছে ইচ্ছামত ফি। তার ফলে একদিকে শিক্ষার্থীরা যেমন মানসম্মত শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অন্যদিকে অভিভাবকরা অর্থনৈতিক ভাবে হচ্ছেন ক্ষতির সম্মুখীন। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১১ সালে সরকার কিন্ডারগার্টেনগুলোর জন্য একটি বিধিমালা তৈরি করে। ওই বিধিমালায় পরিচালনার জন্য ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন, টিউশন ফি নির্ধারণ, ছাত্র-শিক্ষক অনুপাত, শিক্ষক কর্মচারীদের যোগ্যতা ও নিয়োগ, শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক, তহবিল পরিচালনা, বিদ্যালয়ের ভূমির পরিমান ও অনান্য সুযোগ-সুবিধার সুনির্দিষ্ট শর্ত আরোপ করা হয়। উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায় এ পর্যন্ত মাত্র ১০টি প্রতিষ্ঠান রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করেছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ আলী সিদ্দিক জানান, সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করার কথা বলা হলেও মাত্র এ পর্যন্ত ১০টি প্রতিষ্ঠান রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করেছে। আবেদনগুলো আমরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করেছি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম