সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান : বান্দরবানে দুটিসহ পার্বত্যাঞ্চলে ৪টি স্থলবন্দর নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। শুক্রবার জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার মিয়নমার সীমান্তবর্তী ঘুমধুম ইউনিয়নে স্থল বন্দরের জায়গা পরিদর্শনকালে মন্ত্রী এ ঘোষণা দেন।
মন্ত্রী জানান, ভারত ও মিয়ানমারের সঙ্গে স্থল বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বান্দরবানের ঘুমধুম ও চাকঢালা, রাঙামাটির তেরমুখ এবং খাগড়াছড়ির রামগড়ে এসব বন্দর নির্মাণ করা হবে।
অপরদিকে স্থল বন্দরের জায়গা পরিদর্শনকালে মন্ত্রী কয়েকটি পথসভায় অংশ নেয়। এসব পথসভা শেষে নৌমন্ত্রী শাজাহান খান শ্রমিক অসন্তোষের ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ যারা করেন, তারা এ ক্ষেত্রে কতটুকু ভুমিকা রাখতে পারেন? শ্রমিকদের ৫২টি ফেডারেশনকে এক করে জ্বালাও পোড়াও এর বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলেছিলাম। তারপর থেকে শ্রমিক অসন্তোষ হয়েছে, আন্দোলন হয়েছে কিন্তু জ্বালাও পোড়াও ভাংচুর হয় নাই।
তিনি আরও বলেন, ২০১৫ সালে পুলিশ-বিজিবি’সহ অসংখ্য নারী পুরুষকে যারা হত্যা করেছিল, সেই মুহূর্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে দায়িত্ব দিয়েছিলেন। আমি সেই দায়িত্ব নিয়ে গাড়ি চালু রেখে ছিলাম। শ্রমিকরা জীবন দেওয়ার ভয়তে গাড়ি বন্ধ করে নাই, বরং তারা গাড়ী চালু রেখেছিল। সে কাজের জন্য যারা প্রশংসা করতে পারেনি। যারা তখন প্রসংশা করতে যারা কারপণ্য দেখিয়েছেন, আমাকে নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোন নৈতিক অধিকার তাদের নেই।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে নৌ মন্ত্রণালয়ের সচিব অশোক মাধব রায়, স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান মো. আলাউদ্দিন ফকির, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা, জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক, জেলা পুলিশ সুপার সনজিত কুমার রায়সহ বিভিন্ন শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম