সংবাদ শিরোনাম

 

বিনোদন ডেস্ক : দুই যুগেরও বেশী সময় ধরে ঢাকাই সিনেমায় সমানতালে জনপ্রিয় মৌসুমী, শাবনূর। তারও আগে দীর্ঘ সময় সিনেমার পর্দায় রাজত্ব করেছেন ববিতা, কবরী, শাবানা’সহ বেশ কয়েকজন নায়িকা। এই তো কিছুদিন আগেও পূর্ণিমা, পপি’র জনপ্রিয়তা ছিলো আকাশছোঁয়া। সাম্প্রতিক সময়ে মাহি, পরী মনি’সহ বেশ কিছু নায়িকা তারকাখ্যাতি পেলেও চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রিতে এখন নায়িকা সংকট। নির্মাতারা বলছেন, হাতে গোনা কয়েকজন নায়িকা দিয়ে তো আর ইন্ডাস্ট্রি চলে না। মাহি, পরী মনি’সহ হাতে গোনা দু-একজন নায়িকার উপরই নির্ভর করতে হচ্ছে নির্মাতা, প্রযোজকদের। কেউ কেউ নতুন নায়িকা নিয়ে নীরিক্ষা করছেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ঝরে যাচ্ছেন নবাগতরা।

ঢাকাই চলচ্চিত্রে একের পর এক আসছেন নতুন নায়িকা। কেউই নিজের জায়গা তৈরি করতে পারছেন না। প্রতিষ্ঠিত নায়িকাদের বিয়ে এবং হঠাৎ উধাও হয়ে যাওয়ায় নতুনভাবে দেখা দিয়েছে ঢাকাই ছবিতে নায়িকা সংকট। সিনেমায় এখন পরী মনির উপর ভরসা করছেন নবীন-প্রবীণ অনেক নির্মাতা। পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘ইন্ডাস্ট্রিতে এখন অনেক নায়িকা আছেন। নতুন অনেকেই আসছেন। তবে দক্ষ অভিনেত্রীর অভাব রয়েছে। হাতে গোনা দু-একজনের উপরই নির্ভর করতে হচ্ছে নির্মাতাদের।’

এদিকে মাহি, অপু বিশ্বাস, আঁচলের উপর নির্মাতারা আস্থা রাখলেও তারা ব্যক্তিজীবনের নানা ঘটনায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন সিনেমা থেকে। সুপারস্টার শাকিব খানের সঙ্গে জুটি গড়ে ঢাকাই ছবিতে আলোচিত হয়েছেন অপু বিশ্বাস। অর্ধশত সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। বেশিরভাগ সিনেমায় অপু অভিনয় করেছেন শাকিব খানের নায়িকা হিসেবে। কিন্তু বেশ কিছু দিন ধরেই উধাও হয়ে গেছেন এই নায়িকা।

‘ভালোবাসার রঙ’ সিনেমার মাধ্যমে ক্যারিয়ার শুরু করেন মাহিয়া মাহি। অল্পদিনেই নিজেকে নাম্বার ওয়ান নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে মনোমালিন্য হওয়ার পরও মাহির জনপ্রিয়তায় কোনো ভাটা পড়েনি। বরং অন্য নির্মাতাদের কাছেও আস্থা তৈরি করেছিলেন তিনি।

কিন্তু হুট করেই বিয়ে করেন মাহি। বিয়ের পর সাবেক বন্ধুর সঙ্গে মামলায় জড়িয়েছেন এই নায়িকা। বিয়ে পরবর্তী সময়ে সিনেমায় অভিনয় করছেন মাহি। তবে বিয়ের পর এখনো ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিতে পারেন নি। মাহি বলেন, ‘বিয়ে আমার সিনেমা ক্যারিয়ার প্রভাবিত করবে না। আমার স্বামী এবং তার পরিবারের কোন আপত্তি নাই আমার সিনেমায় অভিনয় নিয়ে। বিয়ের পর তো আগের মতোই সিনেমায় অভিনয় করছি।’

নায়িকা আঁচলের উপর বেশ কয়েকজন নির্মাতা আস্থা রেখেছিলেন। কিন্তু সিনেমায় সাফল্য দেখাতে পারেননি তিনি। তবে অনেকেই মনে করেছিলেন সম্ভাবনা ছিল আঁচলের। কিন্তু ব্যক্তিজীবনের নানা ঘটনায় আঁচলকেও দেখা যাচ্ছে না চলচ্চিত্রপাড়ায়। সম্প্রতি ডিপজলের সিনেমা দিয়ে অভিনয়ে ফিরেছেন এ নায়িকা।

চিত্রনায়িকা পপি অনেকদিন ধরেই পর্দায় অনুপস্থিত। তবুও মাঝে মাঝে ফাঁকা আওয়াজ দিয়ে জানান ফিরবেন চলচ্চিত্রে। কিন্তু চলচ্চিত্রে অনেক দিন ধরেই দেখা যাচ্ছে না পপিকে।

অভিনেত্রী জয়া আহসান তো এখন কলকাতার সিনেমাতেই বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বছরের বেশিরভাগ সময় থাকছেন কলকাতায়। মাঝে মাঝে বাংলাদেশের সিনেমায় অভিনয় করছেন। জয়া এখন মাহমুদ দিদারের ‘বিউটি সার্কাস’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন। তবে বিউটি সার্কাসে অন্য রূপে হাজির হচ্ছেন জয়া আহসান। তিনি বলেন, ‘সিনেমায় অভিনয় করে সংখ্যা বাড়াতে চাই না। ভালো গল্পের সিনেমায় অভিনয় করতে চাই। ‘বিউটি সার্কাস’ সবার ভালো লাগার মতো ছবি হবে আশা করছি।’

সিনেমায় ক্যারিয়ারে শুরু থেকেই আলোচনায় রয়েছেন নায়িকা পরী মনি। নতুন-পুরাতন সব নির্মাতার ভরসা যেন হয়ে উঠেছেন এই নায়িকা। গিয়াস উদ্দীন সেলিমের ছবিতে যেমন অভিনয় করছেন, আবার জাজ মাল্টিমিডিয়ার ছবিতেও অভিনয় করছেন তিনি। ফলে নায়িকা সংকটের এই সময়ে অনেকের কাছেই নির্ভরতার প্রতীক হয়ে উঠেছেন পরী মনি।

পরী মনি সম্প্রতি গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘স্বপ্নজাল’ ছবির ডাবিং নিয়ে ব্যস্ত। এরপরই কলকাতার একটি ছবিতে অভিনয় শুরু করবেন। এছাড়া বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি ছবি হাতে রয়েছে পরী মনির। এই গ্ল্যামার কন্যা বলেন, ‘অভিনয় গুণেই দর্শকের হৃদয়ে জায়গা করে নিতে চাই। এরই মধ্যে দর্শকের ভালোবাসা পেয়েছি। এটা ধরেই এগিয়ে যেতে চাই।’

মাহির সঙ্গে জাজের মনোমালিন্য তৈরি হওয়ার পর ঘোষণা দিয়ে দুই নায়িকার আগমনি বার্তা জানান দেয় জাজ মাল্টিমিডিয়া। নুসরাত ফারিয়া ও জোলি জাজের নায়িকা হিসেবেই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে পথ চলা শুরু করেন। এই দুই নায়িকার সিনেমা পর্দায় মুক্তি পেলেও এখনো নিজেদের তেমন মেলে ধরতে পারেননি। তবে জোলির চাইতে কিছুটা এগিয়ে রয়েছেন নুসরাত ফারিয়া। জাজের বাইরে কোনো সিনেমায় অভিনয় করছেন না এই দুই নায়িকা।

আগামী শুক্রবার মুক্তি পাবে জোলি অভিনীত ‘মেয়েটি এখন কোথায় যাবে’ নামের একটি ছবি। দেখার অপেক্ষা ছবিটি কতো ব্যবসায়িক সফলতা এনে দিতে পারে। অবশ্য জাজ মাল্টিমিডিয়ার চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ দাবী করছে নাদের চৌধুরী পরিচালিত ‘মেয়েটি এখন কোথায় যাবে’ ছবিটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেতে পারে। তিনি বলেন, ‘মুক্তির আগে জাজের সব ছবিই আমি একবার দেখে তারপর মুক্তি দেই। জোলির এই ছবিটি ভিন্ন রকম। এই ছবিতে জোলি চমৎকার অভিনয় করেছে। এই ছবিতে অভিনয়ের জন্য জোলিকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেয়া উচিৎ।’

এদিকে আইরিন, মিষ্টি জান্নাত, সিনেমা পাড়ায় অভিষেকের পর সম্ভাবনার আলো জ্বালালেও ব্যবসায়িকভাবে সফল হতে পারেননি। টিভি অভিনেত্রীদের মধ্যে বেশ কয়েকজনকেও দেখা যাচ্ছে বাণিজ্যিক সিনেমায়। তিশা, মিমকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন বাণিজ্যিক সিনেমার নির্মাতারা। এর আগের অভিজ্ঞতায় জানান দিচ্ছে, টিভি অভিনেত্রী দিয়ে বাণিজ্যিক সিনেমা সফল হয় না। তবুও তিশা, মিমের উপর আস্থা রয়েছে অনেক নির্মাতার। একের পর এক নতুন নায়িকার আগমন হলেও সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে রয়েছে নায়িকা সংকট।

চলচ্চিত্র নির্মাতা আমজাদ হোসেন বলেন, একের পর এক নিয়ে আসছেন নতুন নায়িকা। এদের বেশির ভাগেরই নাচ, গান কিংবা অভিনয়ে দক্ষ নয়। ফলে নবাগতদের নিয়ে খুব একটা সফল হতে পারছেন না নির্মাতারা।’


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম