সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানহীন বাটখারা বা পরিমাপক ব্যবহার ও তৈরির শাস্তি বাড়িয়ে ‘স্ট্যান্ডার্ড ওজন ও পরিমাপ আইন, ২০১৭’ এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সচিবালয়ের সোমবার (১৩ মার্চ) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘এ আইনটি মূলত ১৯৮২ সালের দি স্ট্যান্ডার্ডস অব ওয়েট অ্যান্ড মেজার্স অর্ডিন্যান্স। এটি বিএসটিআই আইন নামে পরিচিত। ১৯৮২ সাল সামরিক শাসনামল হওয়ায় সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এটাকে সংশোধন পরিমার্জন করে বাংলায় অনুবাদ করে নিয়ে আসা হয়েছে। এটি হালনাগাদ করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সঙ্গে আমাদের মান নিয়ন্ত্রণের যে সম্পর্ক রয়েছে সে জিনিসগুলো এখানে নিয়ে আসা হয়েছে।’

‘নতুন আইনে অপরাধ ও দণ্ডের মধ্যে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। তবে সব ক্ষেত্রেই আর্থিক শাস্তি বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘মানদণ্ডহীন বাটখারা বা পরিমাপক ব্যবহারের শাস্তি ছিল সর্বোচ্চ ৬ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৩ হাজার টাকা জরিমানা। প্রস্তাবিত আইনে ৬ মাসের কারাদণ্ড ঠিক আছে, সর্বোচ্চ জরিমানা ২০ হাজার টাকা করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রস্তাবিত আইন অনুযায়ী মানহীন বাটখারা বা পরিমাপক বানানোর শাস্তি সর্বোচ্চ এক বছরের কারাদণ্ড বা এক লাখ টাকা জরিমানা। কারাদণ্ড আগের মতোই আছে, তবে আগে জরিমানা ছিল ১০ হাজার টাকা।’

শফিউল আলম জানান, সরকারের অনুমতি নিয়ে সম্পূর্ণভাবে রফতানির উদ্দেশ্যে তৈরি বা উৎপাদিত ওজন বা পরিমাপক ছাড়া অন্য কোন ওজন বা পরিমাপক তৈরি করলে শাস্তি সর্বোচ্চ এক বছরের জেল বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা। আগে জরিমানা ছিল ৫ হাজার টাকা।

কেউ যদি বাটখারা বা পরিমাপকের ত্রুটি সংশোধন না করে, বা প্রচলিত মান পরিবর্তন করে তবে তিনি সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন। এক্ষেত্রেও জরিমানা আগে ৫ হাজার টাকা ছিল বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

তিনি আরও বলেন, ‘নোরাডের (নরওয়েজিয়ান দাতা সংস্থা) সহায়তায় এখানে একটি ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি করা হয়েছে। সেটা ইইউ (ইউরোপীয় ইউনিয়ন) মানের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এই ন্যাশনাল মেট্রোলজি ল্যাবরেটরি (এনএমএল) নরওয়েজিয়ান অ্যাক্রেডিটেশন এবং বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ডের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে।’

এশিয়া প্যাসেফিক মেট্রোলজি প্রোগ্রাম (এপিএমএপি), ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর স্ট্যান্ডারাইজেশন (আইএসও) সহ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংস্থার বিষয়টি খসড়া আইনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলেও জানান শফিউল আলম।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম