সংবাদ শিরোনাম

 

ক্রীড়া ডেস্ক : বাংলাদেশ নিজেদের শততম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং-বোলিং দুই ক্ষেত্রেই শুরুটা ভালো করলেও সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেনি। পি সারা ওভালে শ্রীলঙ্কা প্রথমে ব্যাট করে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ৩৩৮ রান সংগ্রহ করে। যার জবাবে ব্যাট করতে দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২১৪ রান।

তৃতীয় দিনে ব্যাট করতে নেমে মুশফিক-সাকিব জুটি সতর্কভাবেই এগিয়ে নিয়ে চলেছেন দলকে। এ জুটি থেকে দলে রান এসেছে ৯২। এরই মধ্যে মুশফিক নিজের ক্যারিয়ারের ১৭তম টেস্ট হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন। তিনি ছয়টি চারের মারে ৫২ রান করেছেন। হাফসেঞ্চুরি করেই সুরাঙ্গা লাকমালের বলে সরাসরি বোল্ড আউট হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয়েছে বাংলাদেশ টেস্ট অধিনায়ককে।

সৌম্য ও মুশফিকের পর এবার সাকিবও দেখা পেলেন হাফসেঞ্চুরির। গল টেস্টে নিষ্প্রভ থাকার পর পি সারা ওভালে নিজেকে যেন খুঁজে পেয়েছেন সাকিব। ৫টি চারের মারে ৫২ রান করে অপরাজিতে আছেন তিনি। তুলে নিয়েছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ২২তম হাফ সেঞ্চুরি। এর আগে বল হাতেও তুলে নিয়েছেন ২টি উইকেট।

এরই মাঝে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহ ৩০০ পেরিয়েছে। এ প্রতিবেদনটি লেখা অব্দি বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩১৬ রান। উইকেটে রয়েছেন সাকিব ও মোসাদ্দেক।

এর আগে দ্বিতীয় দিনে শেষ সেশনের চার ওভার বাকি থাকতে হঠাৎই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। পরপর সাজঘরের পথ ধরেন তিন টাইগার ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস, তাইজুল ইসলাম আর সাব্বির রহমান। এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে বাকি সময় সামলেছেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ও অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

ব্যাটিংয়ের শুরুটা অবশ্য ভালোই করেছিলেন দুই ওপেনার সৌম্য ও তামিম। ওপেনিং জুটিতে ৯৫ রান এনে দেন দলকে। তবে হাফ সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতে সাজঘরে ফিরে গিয়েছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। আউট হওয়ার আগে তিনি ৬টি চারের মারে ৪৯ রান করেন।

তামিম হাফ সেঞ্চুরির দেখা না পেলেও আরেক ওপেনার সৌম্য হাফসেঞ্চুরি করেছেন। ৯৬ বলে ৫টি চারের মারে ৫০ রান পূর্ণ করে সফরে টানা তৃতীয় হাফসেঞ্চুরি পান তিনি। এর আগে গল টেস্টের দুই ইনিংসেও হাফসেঞ্চুরি করেছেন সৌম্য। এর কিছু পরেই ১১ রান যোগ করে সান্দাকানের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরের পথ ধরেন তিনি।

সৌম্যের আউটের পর উইকেটে নামেন মাহমুদউল্লাহর বদলি সুযোগ পাওয়া সাব্বির রহমান। নেমেই ঝড়ো সূচনা করে ওয়ানডে স্টাইলে ৪২ রান তুলে সুরাঙ্গা লাকমালের বলে ক্যাচ তুলে ফিরে যান সাজঘরে। বল খরচ করেন ৫৪ টি। এর মাঝেই অবশ্য ৩২ রান করে সান্দাকানের এলবিডাব্লিউয়ের স্বীকার হন ইমরুল কায়েস। কিছু পরেই ডাউন পরিবর্তন করে ব্যাটিংয়ে নামেন তাইজুল। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ইমুলের মতো পরিণতি ভোগ করেন তিনিও। শূন্য রানে এলবিডাব্লিউয়ের স্বীকার হন সেই সান্দাকানের। শেষ সেশনের চার ওভার বাকি থাকতেই বিপর্যয় নেমে আসে বাংলাদেশের ব্যাটিং শিবিরে।

বুধবার (১৫ মার্চ) কলম্বোর পি সারা ওভালে টসে জিতে প্রথমদিন ব্যাটিংয়ের পর দ্বিতীয় দিনের মতো ব্যাট করতে নামে শ্রীলঙ্কা। হাতে থাকা ৩ উইকেটে এদিন যোগ করে আরও ১০০ রান। শেষপর্যন্ত নিজেদের প্রথম ইনিংসে সব উইকেট হারিয়ে স্বাগতিকদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৩৮ রান। দিনেশ চান্দিমালের সেঞ্চুরিতেই (১৩৮) সফরকারীদের বিপক্ষে এই সংগ্রহ দাঁড় করায় তারা।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম