সংবাদ শিরোনাম

 

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, কেউ জঙ্গি ইস্যু নিয়ে কোনো ষড়যন্ত্র করলে, তা বাস্তবায়ন হবে না। জঙ্গি দমনে বর্তমান সরকার সফল।

শনিবার বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে সকাল সাড়ে ১০টায় বিজিএমইএ আয়োজিত চাকরি মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

তোফায়েল বলেন, জঙ্গিদের পক্ষেও দেখি অনেকে কথা বলছেন। কল্যাণপুরে যখন জঙ্গি ধরা পড়ল, খালেদা জিয়া তখন বললেন, তারা নাকি দেখতে সুন্দর, জঙ্গি কি না সংশয় আছে! এদিকে আবারও আত্মঘাতী বোমা হামলা হলো।

তিনি বলেন, এক সময় এ দেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি বলা হতো। আর এ দেশ এখন ক্ষুধা-দারিদ্র্য নিরসন ও খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের রোল মডেল। আর ২০২১ সালে পোশাক শিল্পের রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ৫০ বিলিয়ন ডলার আয় করতে হলে তাদের সব ধরনের সহায়তা দিতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, বিজিএমইএ-এর জন্য নতুন একটি সুন্দর ভবন দরকার। নয়তো ক্রেতারা আকৃষ্ট হবেন কী করে। যারা রেমিট্যান্স আনছে দেশে তাদেরও নগদ প্রণোদনা দেওয়ার বিষয়ে প্রস্তাব দেওয়া হবে।

এ সময় শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, অনেক গার্মেন্টস মালিক এসে আমাকে ট্রেড ইউনিয়ন না দেওয়ার অনুরোধ করেন। কিন্তু কেন করেন, তা আমি বুঝি না। পোশাক শিল্পের উদ্যোক্তারা শ্রম অধিকার নিয়ে সচেতন কি না, তা আমি জানি না।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, বিজিএইএ-এর সিনিয়র সহসভাপতি ফারুখ হাসান প্রমুখ।

এবার মেলায় ৪০টি বড় প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। অংশগ্রহণ করা প্রতিষ্ঠানের চাহিদা অনুযায়ী প্রশিক্ষিত ১ হাজার জনের মধ্যে থেকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

বিজিএমইএ ২০১৫ সালের এপ্রিল মাসে স্কিলস ফর ইমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (সেইপ) সঙ্গে সংযুক্ত হয়। পরে এই প্রকল্পের আওতায় বিজিএমইএ-সেইপ নামে কার্যক্রম শুরু করে। প্রকল্পের আওতায় ২০১৮ সালের মধ্যে মোট ৪৩ হাজার ৮০০ কর্মীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এ প্রকল্পের আওতায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের চাকরির সুযোগ সৃষ্টির জন্য এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম