সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্পিকার ও সিপিএ চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, সমাজ ও রাষ্ট্রে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও সকলের জন্য সমান অধিকারের নিশ্চয়তা প্রদান করাই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের সংবিধানে সকল নাগরিক আইনের দৃষ্টিতে সমান এবং আইনে সমান আশ্রয় লাভের অধিকারের স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে এবং বিভিন্ন বিষয়ে অনেক আইন প্রণয়ন করা হয়েছে।
তিনি আজ রাজধানীর ব্রিটিশ কাউন্সিল মিলনায়তনে বাংলাদেশের কমিউনিটি লিগ্যাল সার্ভিসেস (সিএলএস) কর্মসূচী আয়োজিত ‘সেলিব্রেটিং চ্যালেঞ্জ এন্ড চেইঞ্জ : কমিউনিটি লিগ্যাল সার্ভিসেস ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
স্পিকার বলেন, বাংলাদেশে নারী ও শিশুদের ওপর জোর দিয়ে দারিদ্র্য, প্রান্তিক ও সামাজিকভাবে সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর মধ্যে কমিউনিটি আইনি সেবা প্রদানের মাধ্যমে ন্যায় বিচার প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে জিও,এনজিও এবং উন্নয়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ফলপ্রসু অংশিদারিত্বমূলক কর্মসূচী প্রণয়ণ করতে হবে। পাশাপাশি তাদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যমে সিএলএস কর্মসূচী সফল করতে হবে।
স্পিকার আরো বলেন, নারী ও শিশুরা সমাজে আইনি সেবা থেকে বঞ্চিত হয় সবচাইতে বেশী। সে কারণে তাদের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে কর্মসূচী প্রণয়ন করতে হবে, যাতে তারা তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন হতে পারে। সুবিধাবঞ্চিত শ্রেণী যাতে আইনে প্রদত্ত সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য অভিজ্ঞতার আলোকে তাদের ভেতর থেকে না জানার যে শূন্যতা তা দূরীকরণে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে।
কোর্টে মামলা পরিচালনা করা একটি ব্যয়বহুল ও দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়া উল্লেখ করে স্পিকার বলেন, বাংলাদেশ সরকারও আইনি সেবা শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর কাছে মানসম্মত আইনি সেবা পৌছে দিতে সিএলএস সহযোগী সংগঠনগুলোর দক্ষতা বৃদ্ধির ওপর জোর দেন। সাথে সাথে তিনি সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর চাহিদার আলোকে তাদের অধিকারগুলোকে সামনে তুলে ধরে সেবা অব্যাহত রাখার আহবান জানান।
সিএলএস কর্মসূচীর টিম লিডার জেরে‌্যাম সায়্যারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্টের (ব্লাস্ট) এর নির্বাহী পরিচালক সারা হোসেন, ব্রিটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশের পরিচালক বারবারা উইকহ্যাম এবং সিএলএস কর্মসূচীর ক্যাপাসিটি বিল্ডিং কমপোনেন্ট লিড ক্রিস্টিন ফরেস্টার বক্তৃতা করেন।
এছাড়া অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার ডেভিড অ্যাশলে ও ডিএফআইডি বাংলাদেশের গভর্নেন্স টিম লিডার জোয়েল হার্ডিং উপস্থিত ছিলেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম